ডিবির হাওর

অবস্থিত আছে সিলেট
ডিবির হাওর, সিলেট

সিলেটের জৈন্তাপুরে জৈন্তরাজ্যের রাজা রাম সিংহের স্মৃতিবিজড়িত ডিবির হাওর, ইয়াম, হরফকাটা কেন্দ্রী বিলসহ রয়েছে চারটি বিল। বিলগুলোকে কেন্দ্র করেই নাম করা হয়েছে ডিবির হাওর। চারটি বিলের অবস্থান আবার যেখানে-সেখানে নয়। বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী মেঘালয় পাহাড়ের পাদদেশে। রাম সিংহের বিলগুলো শাপলার সিজনে শাপলার রাজ্যে রুপ নেয়। … বিস্তারিত

মৈনট ঘাট, দোহার

অবস্থিত আছে ঢাকা
Moinot Ghat - মৈনট ঘাট

মৈনট ঘাট ঢাকার দোহারে অবস্থিত, যেখানে গেলে আপনি মুগ্ধ হবেন, বিস্ময় নিয়ে তাকিয়ে থাকবেন পদ্মা নদীর অপরূপ জলরাশির দিকে। এই বিশাল জলরাশি, পদ্মায় হেলেদুলে ভেসে বেড়ানো জেলেদের নৌকা দেখা আর পদ্মার তীরে হেটে বেড়ানো, সব মিলিয়ে কিছুক্ষণের জন্য আপনার মনে হবে আপনি এখন ঢাকার দোহারে নয়, কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে … বিস্তারিত

গোলাপ গ্রাম, সাদুল্লাহপুর

অবস্থিত আছে ঢাকা
Golap Gram, Sadullahpur (গোলাপ গ্রাম, সাদুল্লাহপুর)

শহুরে যান্ত্রিক জীবন থেকে একটু বিশ্রামের জন্য বা শারীরিক ক্লান্তি অথবা মানসিক অবসাদ দূর করার জন্য আমরা অনেক জায়গাতেই তো ঘুরতে যাই। তবে সবসময় দূরে কোথাও ঘুরতে যেতে যেমন সময় লাগে তেমনি খরচও হয় বেশি। খরচের থেকেও সময় ম্যানেজ করাটাই হয়ে উঠে প্রধান প্রতিবন্ধকতা। তাই কম সময়ে কাছে কোথাও ঘুরে আসতে পারবেন এমন অনেক জায়গাই … বিস্তারিত

লালাখাল, সিলেট

অবস্থিত আছে সিলেট
লালাখাল

লালাখাল (Lalakhal) সিলেট (Sylhet) শহর থেকে ৩৫ কিলোমিটার দূরে জৈন্তাপুর উপজেলায় অবস্থিত। ভারতের চেরাপুঞ্জির ঠিক নিচেই লালাখালের অবস্থান। চেরাপুঞ্জি পাহাড় থেকে উৎপন্ন এই নদী বাংলাদেশের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত। প্রকৃতিকে খুব কাছ থেকে অনুভব করার জন্য স্থানটি বেশ উপযোগী। পাহাড়ে ঘন সবুজ বন, নদী, চা-বাগান ও নানা … বিস্তারিত

নুহাশ পল্লী, গাজীপুর

অবস্থিত আছে গাজীপুর
নুহাশ পল্লী, গাজীপুর

নুহাশ পল্লী (Nuhash Polli) পিরুজ আলী গ্রামে অবস্থিত যা কিনা বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় গ্রাম। প্রয়াত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদ (Humayun Ahmed) ঢাকার অদূরে গাজীপুরে প্রতিষ্ঠা করেছেন এই প্রাকৃতিক নৈসর্গ নুহাশ পল্লী। গাজীপুর (Gazipur) চৌরাস্তা থেকে ১২ কিলোমিটার দূরে হোতাপাড়া বাজার। সেখান থেকে ৮ কিলোমিটার দূরে পিরুজালী গ্রামে অবস্থিত নুহাশ … বিস্তারিত

সাগরকন্যা কুয়াকাটা

অবস্থিত আছে পটুয়াখালী
কুয়াকাটা

অপরূপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি সাগর কন্যা কুয়াকটা যা পটুয়াখালী জেলায় অবস্থিত। কুয়াকাটা দক্ষিণ এশিয়ায় একটি মাত্র সমুদ্র সৈকত যেখানে দাঁড়িয়ে সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত অবলোকন করা যায়। সমুদ্রের পেট চিরে সূর্য উদয় হওয়া এবং সমুদ্রের বক্ষে সূর্যকে হারিয়া যাওয়ার দৃশ্য অবলোকন করা নিঃসন্দেহে দারুন ব্যপার। কুয়াকাটা বেরী বাঁধ পেরিয়ে সমুদ্র সৈকতের দিকে যেতেই বাম … বিস্তারিত

ভিন্নজগত

অবস্থিত আছে রংপুর
ভিন্নজগত, রংপুর

বেসরকারিভাবে প্রায় ১শ’ একর জমির উপর গড়ে ওঠা ভিন্নজগত বিনোদন কেন্দ্রটি রংপুর শহর থেকে ১১ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। সারাক্ষণ নানা জাতের পাখির কোলাহলে মুখরিত থাকে। এর গাছে গাছে দেখা যায় নানান প্রজাতির পাখি। সন্ধ্যা হলেই তারা তাদের নীড়ে ফিরে আসে। ভিন্নজগতে শোভা পাচ্ছে দেশি-বিদেশি হাজারও বৃক্ষ। এখানে দর্শনার্থীরা গাছের … বিস্তারিত

নক্ষত্রবাড়ি রিসোর্ট

অবস্থিত আছে গাজীপুর
নক্ষত্রবাড়ি রিসোর্ট

গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার রাজবাড়ি এলকায় শিল্পীদম্পতি তৌকির-বিপাশা গড়ে তুলেছেন নক্ষত্রবাড়ি রিসোর্ট। প্রায় ২৫ বিঘার জায়গাজুড়ে তৈরি এই অবসর যাপনকেন্দ্রে আছে দিঘি, কৃত্রিম ঝরনা, সভাকক্ষ, সুইমিংপুলসহ নানান সুবিধা। নক্ষত্রবাড়ী প্রকৃতিপ্রেমী ও ভ্রমণপিপাসুদের কাছেও অতি জনপ্রিয় নাম। এর বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো, পুকুরের পানির ওপর কাঠ-বাঁশের … বিস্তারিত

মেঘমাটি ভিলেজ রিসোর্ট

অবস্থিত আছে ময়মনসিংহ
মেঘমাটি ভিলেজ রিসোর্ট

ব্যস্ত যান্ত্রিক জীবন থেকে কিছুটা সময় প্রকৃতির সান্নিধ্যে কাটানোর জন্য ময়মনসিংহের ভালুকায় আছে মেঘমাটি ভিলেজ রিসোর্ট। এ জায়গায় গেলে নামের স্বার্থকতা খুঁজে পাবেন যে কেউ। বিশাল এলাকাজুড়ে এ রিসোর্টের আছে নানান আয়োজন। মেঘমাটি ভিলেজ রিসোর্ট এ আছে আধুনিক মানের একটি দ্বিতল ভিলার সঙ্গে চমৎকার সুইমিং পুল। এখানকার গাছে ঝুলানো আছে নানান দোলনা। এছাড়া পানির … বিস্তারিত

ছুটি রিসোর্ট

অবস্থিত আছে গাজীপুর
Chuti Resort (ছুটি রিসোর্ট)

ছুটি রিসোর্ট গাজীপুরের ভাওয়াল জাতীয় উদ্যান ঘেঁষে প্রায় ৫০ বিঘা জায়গাজুড়ে সুকুন্দি গ্রামে অবস্থিত। গ্রামীণ আবহে অবকাশ যাপনের জন্য উপযোগী করে তৈরি করা হয়েছে এ রিসোর্টটি। ছুটি রিসোর্টে রয়েছে নৌ ভ্রমণের ব্যবস্থা, বিরল প্রজাতির সংরক্ষিত বৃক্ষের বনে রয়েছে টানানো তাঁবু। ছনের ঘর, … বিস্তারিত

নীলসাগর

অবস্থিত আছে নীলফামারী
নীলসাগর, নীলফামারী

সমুদ্র না হলেও সমুদ্রের নামের সঙ্গে মিল রেখে নামকরণ করা হয়েছে নীলসাগর। নীলফামারীর ঐতিহ্য এই নীলসাগর। জেলা সদর থেকে ১৪ কিলোমিটার দূরত্বে এর অবস্থান। এর আয়তন ৫৩.৯ একর। অষ্টম শতাব্দীতে এটি খনন করা হয়েছিল বলে জানা যায়। বিরাট রাজা গবাদি পশুর পানি সরবরাহের জন্য এটি খনন করেন। ফলে এটি বিরাট দিঘি নামে পরিচিত হয়। কালক্রমে … বিস্তারিত

ক্যাথলিক গির্জা, সৈয়দপুর

অবস্থিত আছে নীলফামারী

উত্তরের ব্যবসা- বাণিজ্য কেন্দ্র নীলফামারীর সৈয়দপুর শহরের গোড়াপত্তন হয়েছিল ব্রিটিশ কোম্পানি শাসনামলে। আসাম বেঙ্গল রেলওয়ে স্থাপিত হলে সৈয়দপুরের গুরুত্ব বেড়ে যায় বহুগুণ। সে সময়ে আসাম বেঙ্গল রেলওয়ের সৈয়দপুর ছিল একটি ছোট্ট রেলওয়ে স্টেশন। এই স্টেশনের ঠিক উত্তর পার্শ্বে স্থাপন করা হয় ছোট একটি লোকোশেড। এই লোকোশেডটি ছিল আজকের দেশের বৃহত্তম … বিস্তারিত

রেলওয়ে কারখানা

অবস্থিত আছে নীলফামারী
দেশের বৃহত্তম রেলওয়ে কারখানা, সৈয়দপুর, নীলফামারী

নীলফামারীর সৈয়দপুর বাংলাদেশের প্রাচীন শহরগুলোর মধ্যে একটি। ব্যবসা-বাণিজ্যের জন্য এই শহরটি অনেক আগে থেকেই প্রসিদ্ধ হলেও অনেকের কাছে সৈয়দপুর ‘রেলের শহর’ বলে বেশি খ্যাত। দেশের বৃহত্তম রেলওয়ে কারখানা এখানে অবস্থিত । ১৮৭০ সালে ১শ’ ১০ একর জমির ওপর ব্রিটিশ আমলে নির্মিত এ কারখানার ২৬টি শপে শ্রমিকরা কাজ করে থাকেন। নাট-বল্টু … বিস্তারিত

চিনি মসজিদ

অবস্থিত আছে নীলফামারী
সৈয়দপুরের বিখ্যাত চিনি মসজিদ

নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর বাংলাদেশের প্রাচীন শহরগুলোর মধ্যে একটি। এই শহরের প্রাচীন সৌন্দর্যের স্থাপত্য নিদর্শন হচ্ছে সৈয়দপুরের চিনি মসজিদ যা অনেকের কাছে চীনা মসজিদ নামে বেশি পরিচিত। মসজিদটি নীলফামারী সদর থেকে ২০ কিলোমিটার দূরে সৈয়দপুরে অবস্থিত। ১৮৬৩ সালে হাজী বাকের আলী ও হাজী মুকু ইসলামবাগ ছন ও বাঁশ দিয়ে একটি মসজিদ নির্মান করেন। পরবর্তীতে এলাকাবাসীর সহায়তায় … বিস্তারিত

প্রজাপতির বাগান

অবস্থিত আছে ঢাকা
প্রজাপতির বাগান, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকার অদূরে সাভারে প্রকৃতির কোলে গড়ে ওঠা জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের আধার এই বিশ্ববিদ্যালয়ে এলাকায় রয়েছে নানা জীববৈচিত্র্য। তবে সবকিছু ছাপিয়ে সম্প্রতি সবার দৃষ্টি কেড়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রজাপতি বাগান। প্রজাপতি গার্ডেন মূলত হরেক নাম আর রঙের প্রজাপতির এক পরিকল্পিত আবাস। সেখানে প্রজাপতিদের জন্য রয়েছে আলাদা … বিস্তারিত

তিস্তা ব্যারেজ

অবস্থিত আছে নীলফামারী, লালমনিরহাট
Teesta Barrage (তিস্তা ব্যারেজ)

বাংলাদেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্পের তিস্তা ব্যারেজ লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলাধীন গড্ডিমারী ইউনিয়নের দোয়ানী এবং পার্শ্ববর্তী নীলফামারী জেলার ডিমলা উপজেলাধীন খালিসা চাপানী ইউনিয়নের ডালিয়া- এর মধ্যবর্তী স্থানে তিস্তা নদীর উপর নির্মিত। ডালিয়া নামটি ফুলের মতো হলেও এটি একটি গ্রাম, যা দেখতে কোনো মনোহরিণীর মতো। সবুজে আচ্ছাদিত এ গ্রামটি আকর্ষণ করে সবচেয়ে পথচারীদের। ভারতের উত্তর সিকিমের পার্বত্য … বিস্তারিত

ফুলের রাজধানী গদখালী

অবস্থিত আছে যশোর
ফুলের রাজধানী গদখালী, যশোর

যশোর শহর থেকে যশোর রোড ধরে শতবর্ষী রেইনট্রির ছায়া মাড়িয়ে বেনাপোলের দিকে ১৮ কিলোমিটার গেলেই গদখালী বাজার। যশোর শহর থেকে ২৫/৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে দুটি থানা ঝিকরগাছা ও শার্শা। এই দুই থানার ছয়টি ইউনিয়নের ৯০টি গ্রামের ৪ হাজার বিঘা জমিতে ফুল চাষ করে স্থানীয় কৃষকরা। এসব … বিস্তারিত