ইয়েলবং রিভার ক্যানিয়ন ট্রেক, কালিম্পং

ইয়েলবং রিভার ক্যানিয়ন ট্রেক

ইয়েলবং (Yelbong) কালিম্পং পাহাড়ের একটি ছোট গ্রামের নাম যেখানে কেবল ১৫ থেকে ২০ টি পরিবারের বসোবাস। শিলিগুড়ি থেকে দুই কিংবা আড়াই ঘন্টার মাঝে পৌঁছে যাওয়া যায় এই স্বর্গরাজ্যে। বাখরাকোট থেকে ৭ কিলোিটার দূরে অবস্থিত এই ইয়েলবং। মেইন রোড থেকে ৪ কিলোিটারের জঙ্গল, ছোটো ছোটো ঝর্না ও পাহাড়ি পথ পেরিয়ে পৌঁছে যাওয়া ইয়েলবং গ্রামে। যাওয়ার পথে … বিস্তারিত

তাবাকোশি, মিরিক

তাবাকোশি

তাবাকোশি (Tabakoshi) মিরিক এর কাছে রংভাং নদীর ধারে ছোট্টো একটি পাহাড়ি গ্রাম যার উচ্চতা প্রায় ৩০০০ ফুট l কমলালেবু গাছ আর চা বাগানে ঘেরা একটা মিষ্টি পাহাড়ি জনপদl নামটা শুনতে কিছুটা জাপানি মনে হলেও আদতে এটি ভারতের উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং জেলায় অবস্থিত একটি ছোট্ট গ্রাম। তাবাকোশী, … বিস্তারিত

গোপালধারা টি এস্টেট, মিরিক, দার্জিলিং

গোপালধারা

মিরিক সাবডিভিশনের গোপালধারা টি এস্টেট (Gopaldhara Tea Estate) দার্জিলিং এর সুস্বাদু এবং সুগন্ধী চা বাগানগুলির মধ্যে অন্যতম। ১৯৫৫ সালে তৈরী এই বাগানের চা ৬০ বছরের‌ও বেশি সময় ধরে চা প্রিয় মানুষের রসনাতৃপ্তি করে আসছে। সারা পৃথিবী জোড়া খ্যাতি এই চায়ের। সবুজ পাইন পথে … বিস্তারিত

কোঠিগাঁও, দার্জিলিং এর আনকোরা অফবিট ডেস্টিনেশন

কোঠিগাঁও

দার্জিলিং জেলার মিরিকের কাছে, পোখরিয়াবং টি এস্টেটের মাঝে সবুজ প্রকৃতির কোলে কোঠিগাঁও (Kothi Gaon) একটি ছোট্ট পাহাড়ী গ্রাম। এই অঞ্চল মূলত দার্জিলিং এর চা বাগানগুলির মধ্যে বিস্তৃত। সবুজ গালিচা মোড়া পাহাড়ী ঢাল আর মাঝেমাঝে আঁকাবাঁকা পাহাড়ী পথ নিয়ে যায় কোঠিগাঁওয়ের পথে। চা বাগানকে নির্ভর করেই জীবিকা নির্বাহ করেন এই অঞ্চলের … বিস্তারিত

দাওয়াইপানি, দার্জিলিং

দাওয়াইপানি

দাওয়াইপানি (Dawaipani) দার্জিলিংয়ের কাছে ৬৫০০ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত এক অদ্ভুত সুন্দর গ্রাম, যেখানের প্রতিটি বাঁকে, প্রতিটি বাড়ি থেকে কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখার হাতছানি রয়েছে। হিমালয়ের কোলে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে মোড়া শান্ত, নিরিবিলি একটা পাহাড়ি গ্রাম। পর্যটকদের কাছে একটু অফবিট ঠিকই কিন্তু যাঁরা প্রকৃতি ভালোবাসেন, তাঁদের কাছে স্বর্গরাজ্য। দার্জিলিং এর টাইগার হিলের উল্টোদিকে এবং দার্জিলিং শহর … বিস্তারিত

রংবুল

রংবুল

রংবুল (Rangbull) গ্রামটি দার্জিলিং এর ঘুম থেকে মাত্র পাঁচ কিমি নিচে, চা বাগানের সবুজ গালিচায় মোড়া এক ছোট্ট গ্রাম। কোন এক শহুরে জীবনে ক্লান্ত মন যখন একটুকরো শান্তি খুঁজে বেড়ায়, নিরিবিলিতে কাটিয়ে দিতে চায় কিছুটা সময় প্রিয়জনের সাথে, সেই মনের নতুন ঠিকানা হতে পারে রংবুল। সাইটসিংয়ের লম্বা লিস্ট, বেড়াতে গিয়ে শপিং এর বাইরে যারা একেবারে … বিস্তারিত

ফালুট

সান্দাকফু-ফালুট ট্রেকের সর্বশেষ গন্তব্য ফালুট (Phalut) যা সান্দাকফু থেকে ২৩ কিমি দূরে অবস্থিত। ফালুট টপের উচ্চতা ৩৬০০ মিটার বা ১১৭৯০ ফিট যা ভারতের পশ্চিমবঙ্গে দ্বিতীয়। হিমালয়ের অপরূপ শোভার জন্যই ফালুট এর খ্যাতি। মেঘ না থাকলে কাঞ্চনজঙ্ঘা আর এভারেস্ট দুই শৃঙ্গই এখান থেকে স্পষ্ট দেখা যায়। এখান থেকে সূর্যোদয় … বিস্তারিত

গুরদুম, দার্জিলিং

গুরদুম

গুরদুম (Gurdum) গ্রামটা সিঙ্গালিলা রেঞ্জের পাশেই যা সান্দাকফু-ফালুট ট্রেকের কারনে বেশ পরিচিত এবং জনপ্রিয়। সান্দাকফু থেকে নামার পথে গুরুদুম হয়ে অনেকে নেমে থাকেন। সান্দাকফু থেকে প্রায় ১০ কিলোমিটার দূরত্ব অতিক্রম করে শ্রীখোলা যাবার পথে পড়বে এই নয়নাভিরাম গ্রাম। মেঘের মধ্যে ভাসতে ভাসতে মনে হবে যেন … বিস্তারিত

চটকপুর

চটকপুর

চটকপুর (Chatakpur), দার্জিলিং জেলার কার্শিয়াং মহকুমায় টাইগার হিলের পাশের পাহাড়টায় তন্দ্রাচ্ছন্ন শ্যামল গ্রামটার নাম। সিঞ্চল অভয়ারণ্যে ৭৭৮৮ ফুট উচ্চতায় চটকপুর এর অবস্থান। জায়গাটির প্রাথমিক আকর্ষণ হ’ল এর দুর্দান্ত পর্বতমালার দৃশ্য এবং একটি শান্ত এবং শান্তিপূর্ণ পরিবেশ। মাত্র ১৯ টি পরিবারের বাস এখানে … বিস্তারিত

সিটং

সিটং

পাহাড়ে ঘেরা, সবুজে ঢাকা সাজানো এক লেপচা জনপদ সিটং (Sittong)। কমলালেবুর উপত্যকায় আর এক নতুন ঠিকানা। কার্শিয়াং মহকুমার এই ছোট্ট এলাকাই এখন পর্যটন মানচিত্রের নতুন আকর্ষণ। রয়েছে সাধ্যের মধ্যে হোম স্টে পরিষেবাও। মিনিট দশেক নেমে গেলে পাবেন কমলালেবুর বাগান (শীতকালে)। আপনাকে স্বাগত জানাবে গাছে ঝুলে থাকা থোকা থোকা কমলালেবু। প্রথমদিন পৌঁছে একটু … বিস্তারিত

শ্রীখোলা, রিম্বিক, দার্জিলিং

শ্রীখোলা

শ্রীখোলা (Srikhola) – দার্জিলিং এর একটি ছোট্ট গ্রাম যেখানে সচরাচর পর্যটকরা যান না৷ তবে যারা সান্দাকফু – ফালুট ট্রেকিং করতে যারা যান তারা শ্রীখোলার সৌন্দর্যে ক্ষণিকের জন্য হলেও থমকে যান৷ এখানে অতিথিদের স্বাগত জানায় শান্ত সুন্দর শ্রীখোলা নদী যার উপরে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে দু’শো বছরের ঝুলন্ত ব্রিজ৷ সবুজে ঘেরা এই গ্রামে ক্ষণিকের … বিস্তারিত

ঝান্ডি

ঝান্ডি

কুয়াশা মেঘের খেলা দেখে মন খারাপ না করে মন ভালো করার নাম ঝান্ডি। এ যেন মেঘের বাড়ি। পাহাড় ও উপত্যকাজুড়ে অরণ্যের সৌন্দর্য। চারপাশে সবুজের কতরকম শেড। পাখির মেলা বসে চেনা অচেনাবহু পাখি। একঘেয়ে জীবন থেকে একটু নির্জনে কাটানোর সেরা ঠিকানা। নিউ মাল জংশন থেকে … বিস্তারিত