শকুনি লেক

শকুনি লেক

শকুনি লেক (Shokuni Lake) মাদারীপুর জেলা সদরে শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত মানবসৃষ্ট দীঘি। তটভূমিসহ শকুনি দীঘির আয়তন ১,০১,১৭২ বর্গমিটার, দৈর্ঘ্য ৪৮৬ মিটার ও প্রস্থ ১৯৮ মিটার। ১৯৪৩ সালে মাদারিপুর শহরকে প্রমত্তা আড়িয়াল খাঁ নদের পাড় থেকে নতুন করে স্থাপনের জন্য দক্ষিণে সরিয়ে আনার লক্ষ্যে এ দীঘিটি খনন … বিস্তারিত

সাউথ টাউন মসজিদ

সাউথ টাউন মসজিদ

সাউথ টাউন মসজিদ (South Town Masjid) ঢাকার কাছেই কেরানীগঞ্জের সাউথ টাউন আবাসিক প্রকল্পের মধ্যে অবস্থিত। নান্দনিক গঠন আর অপূর্ব স্থাপত্যশৈলীর কারনে এই মসজিদ ইতিমধ্যে মানুষের কাছে আকর্ষণীয় রুপে ধরা দিয়েছে। মসজিদে মূলত ধর্মপ্রাণ মানুষেরা প্রাথর্নার জায়গা আর কিছু মসজিদের স্থাপনা নজড় কেড়ে নেয় সকলের। নান্দনিক গঠন … বিস্তারিত

সুন্দরবন হরিণ

সুন্দরবন

সুন্দরবন (Sundarbans) পৃথিবীর বৃহত্তম ম্যানগ্রোভ বন, UNESCO World Heritage Site. শহরের কোলাহলে আপনি যখন অনেকটাই একঘেয়েমি, ঘুরে আসতে পারেন সুন্দরবন থেকে। কথায় আছে “Talk to the forest because the forest always talks to you”। পুরো বনটিতে রয়েছে সামুদ্রিক স্রোতধারা, ছোট ছোট … বিস্তারিত

পুটনী আইল্যান্ড

পুটনী আইল্যান্ড

পুটনী আইল্যান্ড (Putni Island) বাংলাদেশের খুলনা জেলাতে অবস্থিত একটি দ্বীপ যা স্থানীয়দের কাছে দ্বীপচর নামেও পরিচিত। সুন্দরবনের ভিতর প্রকৃতির অপার এক লীলাভূমি এই পুটনী দ্বীপ। একপাশে গহীন জঙ্গল আর অন্যপাশে সমুদ্র সৈকতের মতো বিস্তীর্ণ এলাকা আর ঠিক মাঝখানে খালগুলোর ধারে ঘন সবুজ ঘাসের প্রান্তর। চোখ জুড়ানো এবং মন ভুলানো দৃশ্য … বিস্তারিত

ওয়াং-পা ঝর্ণা

ওয়াং-পা ঝর্ণা

ওয়াং-পা ঝর্ণা (Wang Pa Waterfall) বান্দরবানের গহীনে অবস্থিত একটি পাগল করা ঝর্ণা যা এখনও লোক চক্ষুর আঁড়ালেই রয়ে গেছে। লোক চক্ষুর আঁড়ালে বলার কারন হল যত মানুষ দামতুয়া ঝর্না দেখেছে, তার চেয়ে অনেক কম মানুষ এই ওয়াং-পা ঝর্ণায় গিয়েছে বা এর সম্বন্ধে জেনেছে। অনেকেই শুধু দামতুয়া দেখে চলে আসে। অথচ দামতুয়ার কাছাকাছিই … বিস্তারিত

অচিন গাছ, রাজার হাট, কুড়িগ্রাম

অচিন গাছ

একটি গাছের ঐতিহ্যকে বহন করে একটি এলাকার নাম সর্বত্র সু-পরিচিত হয়ে উঠেছে। এ এলাকাটি হচ্ছে কুড়িগ্রামের রাজারহাট উপজেলার অন্তর্গত চাকির পশার ইউনিয়নের জয়দেব হায়াত মৌজায় কালের সাক্ষী হয়ে ঝোঁপ-জঙ্গলের মাঝে মাথা উঁচু করে বিস্তীর্ণভাবে দাঁড়িয়ে আছে একটি বিশাল আকৃতির এ অচিন গাছ (Ochin Gach)। এলাকার লোকদের ভাষ্যমতে গাছটির বয়স কমপক্ষে ৫শ’ বছর হবে। … বিস্তারিত

ভেতরবন্দ জমিদার বাড়ি

ভেতরবন্দ জমিদার বাড়ি (Bhetarbandh Zamindar Bari) কুড়িগ্রাম জেলা সদর থেকে ১৬ কিমি দূরে নাগেশ্বরী উপজেলার ভেতরবন্দ ইউনিয়নের ভেতরবন্দ গ্রামে অবস্থিত। ইংরেজ আমলের শুরুর দিকে ভেতরবন্দ গরগণার সদর দপ্তর ছিল রাশাহীতে। চিরস্থায়ী বন্দোবস্তের পরেই ভেতরবন্দ পরগণার সদর দপ্তর নাগেশ্বরী উপজেলার ঈেতরবন্দে সহানান্তর করা হয়। জমিদারবাড়ির কাঠ … বিস্তারিত

তিনমুখ পিলার

তিনমুখ পিলার

তিনমুখ পিলার (Tinmukh Pillar) হলো একটি সীমানা খুঁটি, যার গায়ে বাংলাদেশ, ভারত ও মিয়ানমার লেখা। তিনমুখ পিলারটি মূলত রাঙ্গামাটি জেলার বিলাইছড়ি উপজেলার বাংলাদেশ, ভারত ও মায়ানমার সীমানায় অবস্থিত। এটি বাংলাদেশের একমাত্র সীমানা পিলার যা তিন দেশের সীমানা নির্ধারণ করেছে। যদিও এটি রাঙ্গামাটি জেলায় অবস্থিত, তবুও এখানে বান্দরবান জেলার রুমা হয়ে যাওয়াটাই তুলনামূলকভাবে সহজ। … বিস্তারিত

কীর্তিপাশা জমিদার বাড়ি

কীর্তিপাশা জমিদার বাড়ি

কীর্তিপাশা জমিদার বাড়ি (Kirtipasha Zamindar Bari), ঝালকাঠি সদর উপজেলার কীর্তিপাশা ইউনিয়নে অবস্থিত প্রাচীনতম জনপদের একটি নিদর্শন। কালের সাক্ষী এ পুরাকীর্তিটি এখন বিলীনের পথে। প্রয়োজনীয় সংস্কার, সংরক্ষণ ও রক্ষণাবেক্ষণ করলে বাড়িটি হতে পারে দেশের অন্যতম একটি পর্যটন কেন্দ্র। অষ্টাদশ শতাব্দীর প্রথম দিকে বিক্রমপুর পোরাগাছার রাজারাম সেনগুপ্ত কীর্তিপাশায় … বিস্তারিত

২০১ গম্বুজ

২০১ গম্বুজ মসজিদ

২০১ গম্বুজ মসজিদ (201 Dome Mosque) যা টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলায় অবস্থিত একটি মসজিদ। নির্মাতাদের দাবি, এটিই বিশ্বের সবচেয়ে বেশি গম্বুজবিশিষ্ট এবং দ্বিতীয় উচ্চতম মিনারের মসজিদ। ২০১ গম্বুজ মসজিদের মিনারগুলো ৪৫১ ফুট উচ্চতার। ১৫ বিঘা জমির ওপর ৫৭ তলা উচ্চতার বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ইটের তৈরি মিনারের মসজিদটি নির্মিত হয়েছে মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম কল্যাণ ট্রাস্টের … বিস্তারিত

লাংলোক ঝর্না

লাংলোক ঝর্ণা

লাংলোক ঝর্ণা (Langlok Jhorna) বান্দরবানের গহীনে অবস্থিত একটি ঝর্ণা যা কিছুদিন আগে লোকচক্ষুর সামনে এসেছে। লাংলোক এর উচ্চতা ৩৮৮.৯ ফুট। মুলত গভীর জঙ্গল, দূর্গম পথ আর লোকালয়ের বেশ বাইরে থাকার কারনে খুব কম মানুষের চোখে পড়েছে। চারিদিক ঘন জঙ্গলে ঘেরা উচুঁ নিচু আঁকা বাঁকা পথ ও বিল্ডিং সমান পিচ্ছল পাথর পেরিয়ে লাংলোক বা … বিস্তারিত

শীলবান্ধা

শীলবান্ধা ঝর্ণা

শীলবান্ধা ঝর্ণা (Shilabandha Jhorna), বান্দরবান এর রোয়াংছড়ি উপজেলার কচ্ছপতলী ইউনিয়নে অবস্থিত। নাফাখুম ও রেমাক্রীর চেয়ে দূরত্বও কম। অল্প সময়ে সহজে যাওয়া যায় এ পর্যটন স্পটে। দূরত্ব কম ও যাতায়াত ব্যবস্থা সহজ হওয়ায় প্রতিনিয়ত পর্যটকরা ছুটে যাচ্ছেন শীলবান্ধা ঝর্ণা ও দেবতাখুম এর সৌন্দর্য্য দেখতে। অবস্থানঃ রোয়াংছড়ি, কচ্ছপতলী, বান্দরবান। বান্দরবান থেকে … বিস্তারিত