একদিনের সিলেট ট্যুর নামা

যুক্ত করা হয়েছে
ভালো লেগেছে
2
ট্রিপ
১ দিন
খরচ
২০০০ টাকা

ঢাকা থেকে উপবন এক্সপেসে রওনা হলাম রাত ৯.৫০ মিনিটে। ভোর ৫.২০ সিলেট পৌঁছালাম, স্টেশনে নাস্তা করতে করতে আমাদের রিজার্ভ লেগুনা হাজির। ৬.২০ এর দিকে রওনা হলাম রাতারগুলের দিকে। শহর পার হতেই একপাশে এয়ারপোর্টের বর্ডার আর অপর পাশে মালনীছড়া চা বাগান। চা বাগান দেখে হুড়মুড় করে নেমে পরলো সবাই।

কিছুক্ষণ পর আবরা উঠলাম লেগুনাতে, রাস্তার অবস্থা কিছু বলার নাই খুব বাজে রাস্তা।৮.৩০ এর দিকে পৌছালাম রাতারগুল সেখানে গিয়ে তো চোখ চড়কগাছ। সবাই বলে ৬০০/৭০০ করে নৌকা, কিন্তু ১৩০০ নিচে নৌকা যাবে না। অবশেষে লেগুনার ড্রাইভারের সুপারিশে ২ টা ১৯০০ টাকায় পাইলাম। রাতারগুলের ভিতর ডুকে সব অভিযোগ ভুলে গেছি। অনেক সুন্দর একটা বন। দেখেই মুগ্ধ আমরা।

রাতারগুল, সিলেট
রাতারগুল

১০.৩০ দিকে বের হলাম রাতারগুল থেকে। এখানে একটা পাবলিক টয়লেট আছে হাত মুখ ধুয়ে চলে গেলাম বিছানাকান্দি তে। রাস্তার দুপাশের দৃশ্য অনেক সুন্দর কিন্তু রাস্তা না।রাস্তায় পুলিশ আটকালো ঘুষ নেওয়ার জন্য মেজাজটা বিগড়ে গেল। কথা কাটাকাটি করে এক টাকাও দিলাম না। কিছু সময় নষ্ট হলো।

বিছানাকান্দি যাবার ৩ টা ঘাট ২ টার ভাড়া নির্ধারিত আর একটার না। ড্রাইভার আমাদের শেষেরটা তে নিয়ে গেল। যাতে খরচ কম হয়। স্থানীয় একজন আমাদের অনেক হেল্প করলো। ১০০০ টাকায় চলে গেলাম বিছানাকান্দিতে। কি অপরূপ সৃষ্টি বিধাতার। এত সুন্দর ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না। অবশেষে গোছল শেষে এখানে দুপুরের খাবার খেলাম। ওই স্থানীয় ভাইকে নিয়ে কিছু কেনাকাটা করলাম অনেক কম দামে।

এবার ফেরার পালা আশার সময় মাজার জিয়ারত করে পাঁচভাই রেস্টুরন্টে ডিনার শেষ করে ট্রেনে ঢাকা। মাথাপিছু খরচ ছিলো ২০০০ টাকা।

×

করোনা (COVID-19) ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে যা করনীয়ঃ

  • সবসময় হাত পরিষ্কার রাখুন। সাবান দিয়ে অন্তত পক্ষে ২০ সেকেন্ড যাবত হাত ধুতে হবে।
  • সাবান না থাকলে হেক্সিসল ব্যবহার করুন। হেক্সিসল না থাকলে হ্যান্ড সেনিটাইজার ব্যবহার করুন।
  • আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন, যতটুকু সম্ভব ভীড় এড়িয়ে চলুন।
  • বাজারে কিছু স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন, করলে হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • টাকা গোনা ও লেনদেনের পর হাত সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।
  • ওভার ব্রিজ ও সিড়ির রেলিং ধরে ওঠা থেকে বিরত থাকুন।
  • পাবলিক প্লেসে দরজার হাতল, পানির কল স্পর্শ করতে টিস্যু ব্যবহার করুন।
  • হাত মেলানো, কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন।
  • নাক, মুখ ও চোখ চুলকানো থেকে বিরত থাকুন।
  • হাঁচি কাশির সময় কনুই ব্যবহার করুন।
  • আপনি যদি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হয়ে থাকেন তবে মাস্ক ব্যবহার আবশ্যক নয় তবে আক্রান্ত হলে সংক্রমণ না ছড়াতে নিজে মাস্ক ব্যবহার করুন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকুন। Stay Home, Stay Safe.