ফোবজিকা ভ্যালি

ভালো লেগেছে
0

ফোবজিকা ভ্যালি (Phobjikha Valley) বা গাংতে ভ্যালি যা ভুটানের থিম্পু থেকে ১৩৫ কিলোমিটার দূরে ৩০০০ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত যা পুনাখা থেকে ৮০ কিলোমিটার উত্তরে অবস্থিত। সেন্ট্রাল ভুটানের গাংতে অঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে অবস্থিত ইউ আকৃতির ফোবজিকা ভ্যালি আসলে একটি সংরক্ষিত জলাভূমি এবং রামসার সাইটও।

গাংতে গুম্ফার ঠিক নীচে অবস্থিত ফোবজিকা ভ্যালি বিরল প্রজাতির পাখি ব্ল্যাক নেকড্ ক্রেনের শীতকালীন বাসস্থান। ভ্যালিতে হওয়া ছোট ছোট বাঁশ জাতীয় ঘাসের লোভেই প্রতিবছর অসংখ্য পাখি এখানে আসে। ভুটানীরা এই পাখিটিকে পবিত্র এবং সৌভাগ্যের প্রতীক বলে মনে করেন। বহুবছর ধরে এই অঞ্চলে কোনো বিদ্যুৎ পরিষেবা ছিল না শুধুমাত্র পাখিদের কথা মাথায় রেখে। ভ্যালিতেই একটা ক্রেন সেন্টার আছে যেখান থেকে গোটা ভ্যালিতে নজরদারি রাখা হয় এবং পাখিদের দেখাশোনা করা হয়। কথিত আছে সুদূর তিব্বত থেকে অক্টোবরের শেষে যখন এই পাখিগুলো ভ্যালিতে আসে তখন গাংতে গুম্ফাকে তিনবার প্রদক্ষিন করে তবেই ভ্যালিতে নামে , আবার ফেব্রুয়ারিতে ফেরার সময়ও একইভাবে ফেরে।

ভ্যালিতে আলুর চাষ বেশি হলেও, গবাদি পশুদের শীতকালীন খাদ্য হিসাবে এক অন্য প্রজাতির মুলো ও ওলকপিও প্রচুর পরিমাণে চাষ হয়। ভ্যালি থেকে পাইন, ম্যাপেল, রডোড্রেনডন গাছে ঘেরা একটা সরু রাস্তা জঙ্গলের মধ্যে দিয়ে গাংতে গুম্ফার দিকে চলে গেছে। উপর থেকে ভ্যালির এক অসাধারণ দৃশ্য , যা হয়ত ভাষায় বর্ণনা করা অসম্ভব। গাংতে গুম্ফা বৌদ্ধদের প্রাচীন স্কুলগুলোর মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ স্কুল। প্রতিবছর ১২ নভেম্বর গুম্ফার চাতালে ব্ল্যাক নেকড্ ক্রেন উৎসবের আয়োজন হয়, যা দেখতে দেশ বিদেশ থেকে বহু মানুষের সমাগম হয়।

থিম্পুর থেকে এখানে অনেক অনেক বেশি ঠান্ডা। ভুটানের গ্রামীণ জীবনযাপনের স্বাদ নিতে হলে এখানে একবার অবশ্যই আসতে হবে।

যাওয়ার উপায়

পুনাখা থেকে ৮০ কিমি উত্তরে স্বর্গীয় সুষমা নিয়ে আপনার জন্য অপেক্ষা করছে পাইন, মেপল আর উইপিং উইলো দিয়ে ঘেরা ফোবজিকা ভ্যালি। পুনাখা থেকে ওয়াংডু হয়ে বুমথাং যাওয়ার পাকা সড়ক বরাবর চলুন প্রায় ঘন্টা তিনেক, তারপর ডানদিকের পাহাড়ে উঠে মিনিট কুড়ির ড্রাইভ শেষে নেমে আসুন নরম ঘাসে ঢাকা মার্শল্যান্ডে। তিব্বতী কালো-গলা সারসের (Black-necked cranes) শীতকালীন চারণভূমি এই ফোবজিকা ভ্যালীতে ঘন সোনালী শান্তি নিঃশব্দে নেমে আসে আকাশের গা বেয়ে।

কোথায় থাকবেন

ফোবজিকা ভ্যালিতে থাকার ব্যবস্থা বলতে বেশিভাগই ফার্মস্টে আর সবগুলোতেই হট স্টোন বাথের ব্যবস্থা আছে।

গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

পুনাখা, হা ভ্যালী, ফোবজিকা যেতে থিম্পু থেকে পারমিট করাতে হয়। সকাল ১০ টার দিকে পারমিট অফিস খোলে, আর সকাল সকাল আবেদন করলে দুপুর নাগাদ পারমিট পেয়ে যাবেন। থিম্পু থেকে পিনাখা ঘুরতে চাইলে বাস সার্ভিস ভালো, ভাড়াও কম। কিন্তু হা, ফোবজিকা হয়ে পারো যেতে গেলে আলাদা গাড়ি ভাড়া করে নেওয়াই ভালো। প্রকার ভেদে গাড়ি ভাড়া পড়বে ২৫০০-৩০০০ টকা।

×

করোনার প্রাদুর্ভাব বেরে যাওয়ায় অনেক ট্যুরিষ্ট প্লেস গুলোতে ভ্রমণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাই সেখানে ভ্রমণের প্ল্যান করলে আগে থেকে ভালো ভাবে খোঁজ খবর নিয়ে যাবেন।

দিক নির্দেশনা

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।