মায়ানমারের ভিসা প্রসেসিং প্রক্রিয়া

যুক্ত করা হয়েছে
ভালো লেগেছে
1

মায়ানমার ভ্রমণকারীদের জন্য বিভিন্ন মেয়াদে ভিসা দিয়ে থাকে। অনলাইনে ভিসা ফর্ম পূরণ করে এবং টাকা জমা দিয়ে মায়ানমারের ভিসা পাওয়া যায়। অনলাইনে ভিসার জন্য আবেদন করার তিন কার্যদিবসের মধ্যে ভিসা প্রসেসিং এর কাজ শেষ হয়ে যায় এবং ভিসার জন্য অনুমোদনপত্র ই-মেইলের মাধ্যমে আবেদনকারীর কাছে পাঠানো হয়।

স্থানীয় এজেন্সিতে ভিসা ইস্যু করার সময় প্রয়োজনঃ

  • বৈধ পাসপোর্ট (পাসপোর্টের মেয়াদ ৬ মাসের বেশি থাকতে হবে)
  • ২ কপি ছবি। ছবির সাইজ ৪×৬ সে.মি. হতে হবে এবং ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড নীল অথবা সাদা রঙের হতে হবে।
  • ভিসার অনুমোদনপত্র
  • ভিসা স্ট্যাম্পের নগদ ডলার
  • মায়ানমারের বিমানের টিকেট ও হোটেল বুকিং-এর তথ্য।
  • চাকরিজীবী হলে ‍অফিসের অনাপত্তিপত্র
  • ব্যবসায়ী হলে সঙ্গে নেবেন ট্রেড লাইসেন্স
  • ছয় মাসের ব্যাংক স্টেটমেন্ট।

ভিসার জন্য Myanmar Visa Online Apply ওয়েবসাইট থেকে সব সঠিক তথ্য দিয়ে আবেদন করতে পারেন।

আবেদনপত্র সঠিক ভাবে পূরণ করার পরে, ভিসার জন্য অনলাইনে নির্ধারিত চার্জ ক্রেডিট কার্ড, ভিসা অথবা মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে চার্জ পরিশোধ করতে হবে।

ভ্রমণের জন্য মায়ানমারে ২৮ দিন থাকার ভিসা ফি ৫০ ডলার।

যদি কোনো কারণে ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর প্রয়োজন হয়, তবে ভিসার মেয়াদ আরও দুই সপ্তাহ বাড়ানো যায়। এর জন্য নির্ধারিত ‘এক্সটেনশন ফর্ম’ এ আবেদন করতে হয়।

×

করোনা (COVID-19) ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে যা করনীয়ঃ

  • সবসময় হাত পরিষ্কার রাখুন। সাবান দিয়ে অন্তত পক্ষে ২০ সেকেন্ড যাবত হাত ধুতে হবে।
  • সাবান না থাকলে হেক্সিসল ব্যবহার করুন। হেক্সিসল না থাকলে হ্যান্ড সেনিটাইজার ব্যবহার করুন।
  • আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন, যতটুকু সম্ভব ভীড় এড়িয়ে চলুন।
  • বাজারে কিছু স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন, করলে হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • টাকা গোনা ও লেনদেনের পর হাত সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।
  • ওভার ব্রিজ ও সিড়ির রেলিং ধরে ওঠা থেকে বিরত থাকুন।
  • পাবলিক প্লেসে দরজার হাতল, পানির কল স্পর্শ করতে টিস্যু ব্যবহার করুন।
  • হাত মেলানো, কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন।
  • নাক, মুখ ও চোখ চুলকানো থেকে বিরত থাকুন।
  • হাঁচি কাশির সময় কনুই ব্যবহার করুন।
  • আপনি যদি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হয়ে থাকেন তবে মাস্ক ব্যবহার আবশ্যক নয় তবে আক্রান্ত হলে সংক্রমণ না ছড়াতে নিজে মাস্ক ব্যবহার করুন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকুন। Stay Home, Stay Safe.