ডেভিড স্কট ট্রেইল

যুক্ত করা হয়েছে
ভালো লেগেছে
2

প্রতি বছর অনেকেই শিলং (Shillong) যান, তাদের জন্যই এই লেই লেখা। ২০১৬ এর আগষ্ট। আমার গৌহাটি থাকার মেয়াদ শেষের দিকে। নিজের Wishlist থেকে শেষ জায়গাটায় (David Scott Trails) টিক করলাম। অনেকবার অনেকের মুখ থেকে শোনা। ইজি ক্যাটেগরির ৮ কিলোমিটার ট্রেকিং যেখানে সপরিবারে যাওয়া যায়। ছুটি পাবোনা জানি, তাই প্রতিবারের মতো এবারেও আমরা চারজন এক রবিবার সকালে বেরিয়ে পড়লাম গাড়ী নিয়ে।

David Scott trails

এখানে বলে রাখি, ডেভিড স্কট ট্রেইলস এর দুটো প্রান্ত – MAWPHLANG এবং LadMawphlang, দুটোই শিলং থেকে Mawphlawng যাওয়ার রাস্তায় পড়ে। শুরুটা যেকোন একদিক দিয়ে করা যায়।

তো মেঘালয় ঢুকতেই, আকাশের মুখ ভার, সাথে ঝিরঝিরে বৃষ্টি, রাস্তাঘাট শুনশান, এর মধ্যে আবার পথভুলে চলে এলাম Mawphlawng sacred groove. সেখানকার গার্ড শেষে রাস্তা বুঝিয়ে দিয়ে দুঃসংবাদ দিলেন যে গতদুদিনের বৃষ্টিতে পাহাড়ী নদীগুলো বিপজ্জনক হয়ে উঠেছে। তাদের পেরিয়ে ট্রেক শেষ করা অসম্ভব। ফিরে যাওয়ার প্রশ্ন নেই, ঠিক করলাম যতোটা পারি এগিয়ে তারপর ফিরে আসব।

David Scott trails

Mawphlawng এর দিকের trail টা Wellmarked না হলেও মুখ খুঁজে পেতে অসুবিধে হলো না। শুরু হলো এগিয়ে চলা। তার পরের ঘন্টা মিনিটের হিসেব আর মাথায় ছিল না। বৃষ্টি, নদীর গর্জন আর সবুজে মোড়া পাহাড়ী উপত্যকা। আর সেই ভয়ঙ্কর সুন্দরকে দুচোখ ভরে দেখতে দেখতে আমরা শুধু এগিয়ে গেছি। কখনো গোড়ালি জল, কোথাও আধহাঁটু, কোথাও হাত ধরাধরি করে খরস্রোতা নদী পেরোতে পেরোতে আমরা প্রাণ খুলে হেসেছি, আনন্দে চিৎকার করেছি, আর সেসব শোনার মত সেদিন সেই স্বর্গ উপত্যকায় আর কোন মানুষ ছিল না। এভাবেই ঊমিয়াম নদীর ওপরে থাকা কাঠের সেতু পেরোতে দাঁড়িয়ে পড়তে হলো। পাহাড়ের সারির মাঝ দিয়ে ঠিকরে আসা আলোর ছটায় গোটা জায়গা এক অদ্ভুত আলোআঁধারিতে ডুবে আছে। তাকে পেছনে ফেলে এগিয়ে শেষে এক দুর্দান্ত নদীর সামনে এলাম যাকে পেরোনোর সাহস আর হলো না। অতএব সেখান থেকেই ফেরা।

David Scott trails

কিছু দরকারি তথ্য

  • Starting point এ সামান্য কিছু এন্ট্রি ফি লাগে, সেখানে ম্যাপ দিয়ে দেয়।
  • ভেতরে খাবারের কোন দোকান নেই। নিজেরা নিয়ে যান আর উচ্ছিষ্ট সাথে করে নিয়ে আসুন।
  • গাইড দরকার হয় না।
  • শীতকালই যাওয়ার জন্যে বেষ্ট।
×

করোনা (COVID-19) ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে যা করনীয়ঃ

  • সবসময় হাত পরিষ্কার রাখুন। সাবান দিয়ে অন্তত পক্ষে ২০ সেকেন্ড যাবত হাত ধুতে হবে।
  • সাবান না থাকলে হেক্সিসল ব্যবহার করুন। হেক্সিসল না থাকলে হ্যান্ড সেনিটাইজার ব্যবহার করুন।
  • আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন, যতটুকু সম্ভব ভীড় এড়িয়ে চলুন।
  • বাজারে কিছু স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন, করলে হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • টাকা গোনা ও লেনদেনের পর হাত সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।
  • ওভার ব্রিজ ও সিড়ির রেলিং ধরে ওঠা থেকে বিরত থাকুন।
  • পাবলিক প্লেসে দরজার হাতল, পানির কল স্পর্শ করতে টিস্যু ব্যবহার করুন।
  • হাত মেলানো, কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন।
  • নাক, মুখ ও চোখ চুলকানো থেকে বিরত থাকুন।
  • হাঁচি কাশির সময় কনুই ব্যবহার করুন।
  • আপনি যদি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হয়ে থাকেন তবে মাস্ক ব্যবহার আবশ্যক নয় তবে আক্রান্ত হলে সংক্রমণ না ছড়াতে নিজে মাস্ক ব্যবহার করুন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকুন। Stay Home, Stay Safe.