আরু ভ্যালি

ভালো লেগেছে
0

আরু ভ্যালি (Aru Valley) কাশ্মীরের পেহেলগাম/পাহেলগাঁওন থেকে ১২ কিমি গেলে একটি ছোটো গ্রাম। গরম কালে গেলে প্রকৃতির সবুজ রূপ দেখা গেলেও শীতে বরফ এর চোখ ধাঁধানো সৌন্দর্য্য চোখে পড়ে। শীতকালে যখন তুষারপাত হয় তখন এখানে স্কেটিং করার জন্য প্রচুর পর্যটকের সমাগম হয়ে থাকে। আরু ভ্যালি মূলত হ্রদ এবং পর্বতের সৌন্দর্য্যের জন্য বিখ্যাত। গ্রামটি অরু নদীর বাম তীরে অবস্থিত, যা আদতে লিডার নদীর শাখা। এখানে থেকে ঘোড়ায় চড়ে দেখে নিতে পারেন লিডার ওয়াট, পোশপাথর আর লিডার নদীর উত্‍স কোলাহাই হিমবাহ।

ভ্রমণের সেরা সময়

বছরের যে কোন সময় কাশ্মীর ভ্রমণে যাওয়া যায়। আবহাওয়ার দিক থেকে কাশ্মীরের মৌসুম মূলত চারটি। গ্রীষ্মকাল যা সাধারন জুন, জুলাই এবং আগস্ট পর্যন্ত স্থায়ী হয়, শরৎকাল যা সাধারনত সেপ্টেম্বর, অক্টোবর এবং নভেম্বর পর্যন্ত স্থায়ী হয়, আছে শীতকাল যা ডিসেম্বর, জানুয়ারি এবং ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এবং সবশেষে বসন্তকাল যা মার্চ থেকে শুরু হয়ে মে মাস পর্যন্ত থাকে।

এই চার মৌসুমে কাশ্মীরের চার রূপ। স্নোফল পছন্দ করলে অবশ্যই শীতকাল হবে আপনার ভ্রমণের আদর্শ সময়। আরু ভ্যালিতে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে মার্চের মাঝামাঝি পর্যন্ত প্রচণ্ড তুষারপাত হয়। এখানে শীতকালে স্নো স্কিইং একটি জনপ্রিয় খেলা।

এছাড়া বর্ষার যে আলাদা একটা সৌন্দর্য্য আছে সেটা আরও দ্বিগুন হয়ে যায় কাশ্মীরে। তাই এটার সৌন্দর্য্য ভিন্ন। এসময় অফ সিজন হওয়ায় সব কিছুর দাম অনেক কম থাকে। আরু ভ্যালি সবুজে ঢেকে যায়, চারিদিকে সবুজের সমারোহ আপনাকে মুগ্ধ করতে বাধ্য করবে।

আরু ভ্যালি যাওয়ার উপায় এবং খরচ

পেহেলগাম পৌছে ওখানকার ট্যাক্সি ভাড়া করে আপনাকে এখানকার দর্শনীয় স্থানগুলো পরিদর্শন করতে হবে। শ্রীনগর থেকে পেহেলগাম পর্যন্ত ট্যাক্সি যাওয়া আসা হিসাবে ভাড়া করে নেয়া যায়। তবে পেহেলগামে ১ রাত থাকা উচিত প্যাহেলগাম এর আসল সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে চাইলে। পেহেলগাম থেকে এখানকার ট্যাক্সি রিজার্ভ করে চান্দেনওয়ারী, আরু ভ্যালী এবং বেতাব ভ্যালী ঘুরে নেয়া যায়। এই ৩ জায়গা দেখতে গাড়ী ভাড়া পড়বে ১৬০০ রুপির মতো।

আরু ভ্যালি যাওয়ার রাস্তা অসম্ভব সুন্দর ও মোহময়ী। এক পাশে গভীর গিরিখাত, একপাশে পাহাড় কাটা রাস্তা আর সর্বত্র সঙ্গী লিডার নদী। ভয়ংকর সৌন্দর্য বলে যদি কিছু থাকে তবে তা হলো আরু ভ্যালি যাওয়ার পথ।

কোথায় থাকবেন

পেহেলগেম থাকবার জন্যে অসংখ্য হোটেল, মোতেল এবং রিসোর্ট রয়েছে। আরু ভ্যালিতেও রয়েছে থাকবার জন্যে রিসোর্ট এবং কটেজ। আরু ভ্যালিতে থাকবার সেরা জায়গা জম্মু কাশ্মীর পর্যটনের ট্যুরিস্ট বাংলো, ভাড়া- ১৬০০-২৮২৫ টাকা। এছাড়া রয়েছে হোটেল মিল্কিওয়ে, ভাড়া- ১২০০-১৫০০ টাকা। ফ্রেন্ডস গেস্ট হাউস, ভাড়া- ৬০০-৮০০ টাকা।

এসব রিসোর্টে আপনি চাইলে এজেন্সির মাধ্যমে বুকিং দিতে পারেন কিংবা অনলাইন হোটেল বুকিং সাইটগুলো ব্যবহার করে বুকিং করতে পারেন। অনলাইন হোটেল বুকিং সাইট গুলোর মধ্যে নির্ভরযোগ্য কিছু ওয়েবসাইট হলো – বুকিং ডট কম, Agoda, make my trip ইত্যাদি।

×

করোনার প্রাদুর্ভাব বেরে যাওয়ায় অনেক ট্যুরিষ্ট প্লেস গুলোতে ভ্রমণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাই সেখানে ভ্রমণের প্ল্যান করলে আগে থেকে ভালো ভাবে খোঁজ খবর নিয়ে যাবেন।

দিক নির্দেশনা

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।