শীলবান্ধা

শীলবান্ধা ঝর্ণা

শীলবান্ধা ঝর্ণা (Shilabandha Jhorna), বান্দরবান এর রোয়াংছড়ি উপজেলার কচ্ছপতলী ইউনিয়নে অবস্থিত। নাফাখুম ও রেমাক্রীর চেয়ে দূরত্বও কম। অল্প সময়ে সহজে যাওয়া যায় এ পর্যটন স্পটে। দূরত্ব কম ও যাতায়াত ব্যবস্থা সহজ হওয়ায় প্রতিনিয়ত পর্যটকরা ছুটে যাচ্ছেন শীলবান্ধা ঝর্ণা ও দেবতাখুম এর সৌন্দর্য্য … বিস্তারিত

বাক্তলাই ঝর্ণা

বাকলাই ঝর্ণা

বাকলাই ঝর্ণা (Baktlai Jhorna ) যা বর্তমানে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ ঝর্ণা। বাক্তলাই ঝর্ণার উচ্চতা প্রায় ৩৯০ ফুট এবং এটি বান্দরবানের বাকলাই গ্রামে অবস্থিত একটি ঝর্ণা। নিরাপত্তাজনিত কারনে প্রশাসন ২০১৫ সাল থেকে এই রুটটিও বন্ধ রেখেছে। প্রায় ৩৯০ (+/-১০) ফুট উচুঁ পাহাড়ের খাঁজ বেয়ে তীব্র জলধারা … বিস্তারিত

লিপ অ রা/লিক্ষ্যং/লিখ্যিয়াং ঝর্ণা

লিখ্যিয়াং ঝর্ণা

বান্দরবানের সবচেয়ে অপরিচিত ট্রেইল এবং অদেখা সৌন্দর্য্যে মধ্যে লিখ্যিয়াং ঝর্ণা (Likkhyang Waterfall) অন্যতম। রেমাক্রির নিকটবর্তী হওয়ার পরও তুলনামূলক অপরিচিত এবং বুনো সৌন্দর্য্যে ভরপুর এই ট্রেইলে খুব কম মানুষেরই পদচারণা পড়েছে এখন পর্যন্ত। রেমাক্রি থেকে দূরের ছোট মদক ঘাটের আগে, একটি গ্রামে এই ঝর্ণার অবস্থান। লিখ্যিয়াং বাংলাদেশের … বিস্তারিত

কেওক্রাডং, বান্দরবান
যুক্ত করা হয়েছে

বর্ষায় পাহাড়ি স্বর্গ – বগা লেক, কেওক্রাডং

অনেকদিন থেকে প্লান করছিলাম কোথাও ঘুরতে যাব।দূরে কোথাও। কিন্তু কাউকে সে ভাবে পাচ্ছিলাম না যাওয়ার মত। তখনই আচমকা একদিন দীপ্ত বলল চল বান্দরবান যাই। আমাকে আর আটকায় কে? জুন মাসের ২৯ তারিখ আমরা বগা লেক (Boga Lake) আর কেওক্রাডং (Keokradong) যাচ্ছি ফাইনাল হলো। আমরা নয় জনের মত ছিলাম। … বিস্তারিত

সিপ্পি আরসুয়াং

সিপ্পি আরসুয়াং

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ চূড়াগুলোর মধ্যে সিপ্পি আরসুয়াং (Sippi Arsuang) অন্যতম, যার উচ্চতা আনুমানিক ৩০৩৪ ফুট যা বাংলাদেশের ১০ম সর্বোচ্চ চূড়া। সিপ্পি আরসুয়াং পাহাড়ের অবস্থান বাংলাদেশের পার্বত্য চট্রগ্রামের বান্দরবান জেলার রোয়াংছড়ি উপজেলার অনেক গহীনে। রোয়াংছড়িতে অবস্থিত এই পাহাড়টি বিগিনারদের জন্য আদর্শট্রেক হতে পারে। সময়ও কম লাগে। মাত্র তিনদিনেই এই ট্রেক শেষ করে আসা যায়।  … বিস্তারিত

মুনলাই পাড়া, রুমা

বান্দরবান শহর থেকে মাত্র দুই-আড়াই ঘণ্টার যাত্রায় চলে যাওয়া যায় ৫৪ বম পরিবারের প্রশান্তময় পাহাড়ি গ্রাম মুনলাই (Munlai Para) পাড়াতে। চারিদিকে পাহাড় বেষ্টিত এবং সাঙ্গু নদী বিধৌত এই পাড়াটিতে উপভোগ করতে পারবেন স্ট্যান্ডার্ড কিন্তু ইকো সিস্টেমের হোম স্টে এবং পাহাড়ি রান্নার অসাধারণ স্বাদ, রোমাঞ্চকর ট্রেকিং, কায়াকিং, দেশের দীর্ঘতম জিপ লাইন এবং অন্যান্য অনেক … বিস্তারিত

কেওক্রাডং

বর্ষা মৌসুমে কেওক্রাডং ট্র্যাকিং

ঢাকা থেকে রাতের শেষ বাসে বান্দরবান এর উদ্দেশ্যে রওনা। ঢাকা থেকে বান্দরবান নন এসি বাস (হানিফ, শ্যামলি, ইউনিক, এসআলম) ভাড়া ৬২০ টাকা। এসি বাস (শ্যামলী,সেন্টমারটিন) ভাড়া ৯৫০ টাকা। পরদিন ভোরে বান্দরবান টার্মিনালে নামার পর সকালের নাস্তা করে ফেলুন। টার্মিনালের আশেপাশে অনেক চান্দের গাড়ি … বিস্তারিত

নাইক্ষ্যংছড়ি উপবন পর্যটন লেক

নাইক্ষ্যংছড়ি উপবন পর্যটন লেক

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য আর বৈচিত্র্যের লীলাভূমি বান্দরবান। উঁচুনিচু পথ, পাহাড়ের শরীর জুড়ে ঘন সবুজের সমারোহ যেন একেঁবেঁকে চলে গেছে গভীর থেকে আরো গভীরে। বৈচিত্র্যময় পাহাড়ি জেলা বান্দরবন এর রূপের জাদুর যেন শেষ নেই। প্রকৃতি তার আপন খেয়ালে এখানে মেলে ধরেছে তার সৌন্দর্যের মায়াজাল। বান্দরবনের পাহাড়, ঝর্ণা, লেক … বিস্তারিত

ভেলাখুম, বান্দরবান
যুক্ত করা হয়েছে

নাফাখুম, আমিয়াখুম, সাতভাইখুম এবং ভেলাখুম ট্যুরের বিস্তারিত রিভিউ

আমরা ছিলাম ৫ জন, ট্যুরের প্লান ছিল ৩ দিন চার রাতের কিন্তু পরবর্তীতে এক প্রকার বাধ্য হয়েই ট্যুরটা ৪ দিন পাঁচ রাতের হয়ে যায়। সে ব্যাপারে পরে বলছি। গত ২২ মার্চ, ২০১৮ তারিখ রাতে ১১.৩০ টার বাসে টিকিট কাটি তারও এক সপ্তাহ … বিস্তারিত

ভেলাখুম, বান্দরবান

ভেলাখুম

ভেলাখুম (Velakhum) এর জল-পাথরের রাজত্বে ভেলা বাইতে বাইতে অপার্থিব এক অনুভূতির জন্ম হয়! দুই পাশে পাথরের সুউচ্চ দেয়াল আর মাঝখান দিয়ে শান্ত-স্বচ্ছ সবুজ পানির এই লেগুন নেমে এসেছে আমিয়াখুম থেকে। আমিয়াখুমের আপ স্ট্রিমের এই জল-গিরি পথ পাড়ি দেবার সময় বিশ্বাস করতে বাধ্য হবেন যে দু’পাশের আকাশছোঁয়া পাথরের পাহাড় দেবতার মতো গাম্ভীর্য … বিস্তারিত

তিনাম ঝর্ণা

তিনাম ঝর্ণা

তিনাম ঝর্ণা (Tinam Waterfall), বাংলাদেশের পার্বত্য জেলা বান্দরবানের আলীকদম উপজেলায় অবস্থিত অপরুপ একটি ঝর্ণা। প্রকৃতির আরেক বিস্ময় এই ঝর্ণা। সুউচ্চ পাহাড় থেকে খানিক দূরত্বে পাশাপাশি দুইটি ঝর্ণা ওবিরাম ধারায় ঝরে পড়ছে অবিরত। তিনাম ঝর্ণাটি দেখতে আলীকদম সদর থেকে মাতামুহুরী নদীপথে অন্তত ৬০/৭০ কিলোমিটার দূরে যেতে হয়। বর্ষায় এ ঝর্ণার পানি প্রবাহ অনেক … বিস্তারিত

আমিয়াখুম
যুক্ত করা হয়েছে

আমিয়াখুম, ভেলাখুম, ক্রাইক্ষ্যং ঝর্না, নাফাখুম, রেমাক্রী ফলস ভ্রমণ

আজ ২০ তারিখ, রাত ১১:২০, জিন্না পাড়ার কটেজ। সাত ঘন্টা ট্রেকিং এরপর অবশেষে কটেজে পোঁছালাম। এত কঠিন ট্রেকিং পর আমার মনে হচ্ছে আমি আর বাঁচব না। কাল ভয়ংকর দেবতা পাহাড় পার করতে হবে, হয়তো ওখানেই আমার শেষ। যদি আমার মৃত্যু হয় তাইলে আজকের এই এত কষ্টের পথ পাড়ি দেয়ার কথা কেউ জানবে না। তাই কিছুটা … বিস্তারিত