রোথাং পাস

ভালো লেগেছে
0
Ratings
রেটিংস ( রিভিউ)

সিমলা থেকে মানালী যাওয়া মানেই রোথাং পাস ট্রিপ যা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ১৩৫০০ ফুট (৪০০০ মিটার) উপরে অবস্থিত একটি রাস্তা, যেখানে স্বর্গ মনে হবে হাতের মুঠোয়। মানালী থেকে ৫০ কিমি দূরে কেইলং লেহ জাতীয় সড়ক পথে কোথি, গুলাবা ভ্যালি, মারহি হয়ে পৌঁছে যাওয়া যাবে রোথাং পাস। মে মাসের মাঝামাঝি থেকে রাস্তা খোলে এবং নভেম্বর পর্যন্ত খোলা থাকে। সমগ্র শীতকালে রোহটাং পাস তুষারপাতের জন্য বন্ধ থাকে। ফেব্রুয়ারিতে মানালী শহরেই তুষারপাত হয়। তখন কোথি পর্যন্ত যাওয়া যায়। মার্চে খোলে গুলাবা ভ্যালি। এপ্রিল মাসে মারহি। মে মাসে ওপেন হয় রোহটাং পাসের রাস্তা।

কোথি হল মানালী থেকে রোহটাং পাস যাওয়ার এন্ট্রি পয়েন্ট। এরপর গুলাবা ভ্যালিতে গাড়ির পারমিট করানোর অনুমতি মেলে। মারহি কিম্বা রোতাং পাস এপ্রিল- মে পিক সিজনে ট্যুরিস্ট এর লাইন পড়ে। প্রতিদিন প্রায় ১২০০-১৫০০ গাড়ি পারমিশন পায়। মঙ্গলবার রোথাং পাস বন্ধ থাকে। এই সময় বরফে স্কি, স্নো বাইকিং, প্যারাগ্লাইডিং, সমস্ত রকম এডভেঞ্চার স্পোর্টস এনজয় করা যায়।

প্রকৃতপক্ষে, কুলু এবং লাহুল দুই উপত্যকাকে আলাদা করেছে রোথাং পাস। লে লাদাখ যাওয়ার এন্ট্রি পয়েন্ট ও এই রোহটাং পাস। হিমাচল প্রদেশের মানালী থেকে রোথাং পাস দিয়ে ঢুকে কার্গিল শ্রীনগর (কাশ্মীর) দিয়ে বেরোনোর এক সুন্দর ভ্রমণ সার্কিট হলো এই লেহ লাদাখ বা উল্টো পথ।

মানালী থেকে রোথাং পাস ঘুরে ফেরার সময় পলচান থেকে ডানদিকের রাস্তা ধরে গেলে পৌঁছে যাওয়া যায় সোলাং ভ্যালি। এটিও খুব সুন্দর। চারিদিকে সবুজে ঘেরা উপত্যকা। প্যারাগ্লাইডিং এর স্বর্গ রাজ্য। এছাড়া বর্তমানে গন্ডলা বা রোপওয়ে চালু হয়েছে।

কিছু তথ্য

  • প্রতি মঙ্গলবার রোথাং পাস বন্ধ থাকে।
  • রোহটাং পাস যাওয়ার গাড়ির অনুমতি মেলে গুলাবা ভ্যালি থেকে। এইক্ষেত্রে ট্যুরিস্টদের কোনো পরিচয়পত্র লাগে না। গাড়ির ড্রাইভার রাই নিজের পরিচয়পত্র দিয়ে আগে থেকে অনুমতিপত্র নিয়ে রাখে। খরচ ৫০০ টাকা। সেই অনুমতিপত্র দিয়েই রোহটাং পাস যাওয়ার অনুমতি মেলে।
  • এক্ষেত্রে জেনে রাখা ভালো সিমলা মানালী রুটের নর্মাল গাড়ি কিন্তু রোহতাং পাস যেতে পারে না। রোহটাং পাস যাওয়ার আলাদা ইউনিয়ন গাড়ী থাকে। হোটেল কিংবা মানালী ম্যাল অথবা আপনার পুরো ট্রিপের ড্রাইভারই যোগাযোগ করিয়ে দেবে। গাড়ী ভাড়ার নির্দিষ্ট কোনো রেট নেই। পুরোটাই দরদামের উপর নির্ভরশীল।
  • বরফে খেলার জন্য এবং ঠান্ডায় বরফে ভিজে না যাওয়ার জন্য আলাদা সারা শরীরের পোশাক ভাড়া পাওয়া যায়। ২৫০ টাকার বিনিময়ে।
  • রোহটাং পাস যেতে সকালে যত তাড়াতাড়ি বেরোবেন তত আপনার লাভ। পিক সিজনে ১২০০-১৫০০ গাড়ির লাইন, জ্যাম আপনাকে ফেস করতে হবে। তাই ভোরবেলা মানালী থেকে বেরিয়ে পড়ুন। রাস্তায় কোথিতে ব্রেকফাস্ট করে নিন। সাথে শুকনো খাবার রাখবেন। বর্তমানে মারহিতে ম্যাগি জাতীয় খাবার পাওয়া যায় (দু একটা স্টল)।
  • রোহটাং পাস সারাদিনের ট্রিপ। মানালী থেকে বেরিয়ে সেইদিন ঘুরে বিকেল বেলা মানালী ফিরে এসে, সন্ধ্যাবেলা মানালী ম্যাল উপভোগ করুন। শপিং ও করতে পারেন। রাত্রিবাস মানালীতেই। পরদিন সকালে মানালী লোকাল সাইটসিন দেখতে বের হন।

ঘুরতে যেয়ে পদচিহ্ন ছাড়া কিছু ফেলে আসবো না,
ছবি আর স্মৃতি ছাড়া কিছু নিয়ে আসবো না।।

দিক নির্দেশনা

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।

Sending