লোকটাক লেক, মণিপুর

ভালো লেগেছে
0

মণিপুরের রাজধানী ইম্ফল থেকে মাত্র ৪২ কিলোমিটার দূরে লোকটাক লেক (Loktak Lake) এর অবস্থান। বিষ্ণুপুর জেলার মোইরাং শহরের কাছে মণিপুর নদী এবং আরও অন্য কয়েকটা ছোটো ছোটো নদীর জল এসে মিশে মিষ্টি জলের এই হ্রদটা তৈরী। মণিপুরের মেইতেই লোকভাষায় ‘লোক’ মানে নদী, আর ‘টাক’ হলো যেখানে শেষ হয়েছে। প্রায় ২৯০ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের লোকটাককে ঘিরে রেখেছে ছোট ছোট পাহাড়। গভীরতা প্রায় ১৫ ফুট। এরকম ভাসমান দ্বীপ পৃথিবীতে আর অন্য কোথাও নেই। এই দ্বীপগুলো জলজ উদ্ভিদ দিয়ে তৈরি। কিছু দ্বীপ একেবারেই জলের উপর ভাসন্ত। আর কিছু আছে যেগুলোর নীচের শিকড় লেকটার নীচের মাটি পর্যন্ত চলে গেছে। এই দ্বীপগুলোকে মণিপুরী ভাষায় বলে ফুমদি বা ফুমশোঙ্।

লেকটাক হ্রদের জলে অনেক প্রজাতির মাছ। ফুমদিতে তাই সাধারণত মৎস্যজীবীরাই থাকে। হ্রদের উপরে তাদের দৈনন্দিন জীবনের ছবি চোখে একটা মায়া, মুগ্ধতা সৃষ্টি করে। সব থেকে বড় ফুমদিটা ৪০ বর্গ কিলোমিটার। সেইখানেই পৃথিবীর একমাত্র জলের উপর তৈরী ন্যাশনাল পার্ক। কেইবুল লামজাও ন্যাশনাল পার্ক। সেখানে কত রকমের পাখি। আর তাছাড়া ‘সাঙ্গাই’ নামের নাচুনে হরিণ ( Sangai Dancing Deer, যাদেরকে Eld’s Deer এর প্রজাতি ধরা হয়), সেটাও শুধু এই Keibul Lamjao National Park এই দেখতে পাওয়া যায়।

×

করোনার প্রাদুর্ভাব বেরে যাওয়ায় অনেক ট্যুরিষ্ট প্লেস গুলোতে ভ্রমণ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। তাই সেখানে ভ্রমণের প্ল্যান করলে আগে থেকে ভালো ভাবে খোঁজ খবর নিয়ে যাবেন।

দিক নির্দেশনা

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।