কার্শিয়াং

ভালো লেগেছে
2

কার্শিয়াং দার্জিলিং জেলার একটি পাহাড়ি শহর যাকে বলা হয় Land Of White Orchid. এটি ১৪৫৮ মিটার উঁচুতে অবস্থিত। কার্শিয়াং দার্জিলিং থেকে মাত্র ৩০ কিলোমিটার দূরে। এখানকার আবহাওয়া সারা বছরই আরামদায়ক, শীতকালের ঠান্ডা দার্জিলিং এর মতো তীব্র নয়। কার্শিয়াং এর স্থানীয় নাম খার্সাং, লেপচা ভাষায় এই কথার অর্থ ‘সাদা অর্কিডের দেশ’। কার্শিয়াং (Kurseong) শিলিগুড়ি থেকে ৪৭ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত যার কাছের বিমানবন্দর বাগডোগরা এবং কাছের রেলস্টেশন নিউ জলপাইগুড়ি যা কার্শিয়াং থেকে ৫৩ কিলোমিটার দূরে। শহরের অর্থনীতির ভিত্তি স্কুল ও পর্যটন।

ব্রিটিশরা সিকিমের সম্রাটের থেকে ১৮৩৫ সালে কার্শিয়াং দখল করে নেয়। পরবর্তী কালে ১৮৮০ সাল থেকে এটি ব্রিটিশ শাসকদের বেড়ানোর জায়গায় পরিণত হয় এবং অসুস্থদের স্বাস্থ্য ফেরানোর জায়গা হিসেবে প্রসিদ্ধি লাভ করে। কার্শিয়াং এর উচ্চতম স্থান ডাউহিল – কয়েকটা দিন বিশ্রামের পক্ষে দারুন একটি জায়গা।

কার্শিয়াং এর দর্শনীয়স্থান

  • মাকাইবাড়ি টি এস্টেট (Makaibari Tea Estate)
  • ডিয়ার পার্ক(Deer Park)
  • নেতাজি সুভাস চন্দ্র বসু মিউজিয়াম (Netaji Subhash Chandra Bose Museum)
  • দার্জিলিং হিমালয়ান মিউজিয়াম (Darjeeling Himalayan Railway Museum)
  • ভিক্টোরিয়া বয়েস স্কুল (Victoria Boys School)
  • ডাউহিল গার্লস স্কুল (Dow Hill Girls School)
  • ঈগল’স ক্রাগ (Eagle’s Crag)
  • ডাউহিল (Dow Hill) এবং ডো হিল পার্ক
  • গিদ্দা পাহাড় ভিউ পয়েন্ট (Giddapahar View Point)
  • Margaret’s Deck
  • কার্শিয়াং থেকে দার্জিলিং পর্যন্ত টয় ট্রেন রাইড (Toy Train ride between Kurseong and Darjeeling)

বেড়ানোর উপযুক্ত সময়

কার্শিয়াং বেড়ানোর সেরা সময় মার্চ থেকে মে মাস এবং আগস্টের শেষ থেকে অক্টোবর।

কিভাবে যাবেন

শিলিগুড়ি থেকে ভাড়া বা শেয়ারড জীপে যেতে পারেন। কলকাতা থেকে বাস বা ট্রেনে নিউ জলপাইগুড়ি, বিমানে গেলে বাগডোগরা চলে যান। এরপর ভাড়া বা শেয়ারড জীপে। দার্জিলিংয়ে যাওয়ার পথে কার্শিয়াং নেমে ঘুরে দেখতে পারেন। এছাড়া মিরিক বাস স্ট্যান্ড থেকে বাসে কিংবা শেয়ারড জীপে কার্শিয়াং যেতে পারবেন।

কোথায় থাকবেন

কার্শিয়াং এ থাকার জন্যে বেশ অনেক হোটেল রয়েছে। কার্শিয়াং এ মধ্যম মানের হোটেলের এর মধ্যে আছে অমরজিৎ হোটেল, কার্শিয়াং ট্যুরিষ্ট লজ, প্রধান গেস্ট হাউজ ইত্যাদি। এছাড়া অল্প বাজেটের মধ্যে আছে মাকাইবাড়ি হোম স্টে (Makaibari Home Stays) এবং সিঙ্গেল হোম স্টে (Singell Home Stay)। এছাড়া ৩ স্টার মানের হোটেল এর মধ্যে Cochrane Place এবং The White Orchid Resorts & Spa অন্যতম।

তবে কার্শিয়ঙে থাকার জায়গার আভাব নেই, কিন্তু Cochrane Place এ থাকার মজাটাই আলাদা, সঙ্গে উপরি পাওনা নানা ধারনের Blended Tea.

ঘুরতে যেয়ে পদচিহ্ন ছাড়া কিছু ফেলে আসবো না,
ছবি আর স্মৃতি ছাড়া কিছু নিয়ে আসবো না।।

দিক নির্দেশনা

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।

  1. আলো ছায়া ঢাকা পাইনের ঘন জঙ্গলের কুয়াসা মাখা রাস্তায় ঘুরে বেরাতে চান যদি তাহলে কার্শিয়াং অনবদ্য। প্রতিটা মুহুর্ত মনে হতে পারে স্বপ্ন।

  2. দার্জিলিং সুন্দরি অবশ্যই কিন্ত মানুষের ভিড় এর জন্য প্রকৃতিকে উপলব্ধি করার সুযোগ কম। কারশিয়াং এ কিন্তু সেই সুযোগটা বেশ ভালো পাবেন।

  3. ছোট্ট কার্শিয়াং আমার মতো পাহাড় প্রেমীকে যা দিয়েছে তা দীর্ঘদিন আমার হৃদয়ে ধরা থাকবে ৷ বন্ধুদের অনুরোধ করব দার্জিলিং ট্যুরের সঙ্গে একটা দিন এই ছোট্ট কার্শিয়াংকে দিন৷ পাইন, ফার, বার্চে ছাওয়া ঘন কুয়াশার মধ্যে দিয়ে গা ছমছম করা পরিবেশের মধ্যে দিয়ে ঘুরে বেড়াতে মন্দ লাগবে না নিশ্চিত।

  4. পাহাড়ের গায়ে এ যেন এক সুন্দর ছোট শৈল শহর। চারিদিক পাহাড়ে ঘেরা আর সবুজ চা বাগানে ভরা। মেঘলা আকাশ দেখে মনে হবে যেন সব সময় কুয়াশা ভরা পরিবেশ।