জমসম

ভালো লেগেছে
3

জমসম শহরটি নেপালের মুস্টাং জেলায় অবস্থিত যা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ২৭৬০ মিটার উচ্চতায় এবং কালী গান্ধাকী নদীর তীরে  অবস্থিত। এই শহরটি খুব জনপ্রিয় ট্রেকিং করার জন্যে। কালী গান্ধাকী নদীর তীর ধরে ট্রেক করে মুক্তিনাথ মন্দির পর্যন্ত যা জমসম-মুক্তিনাথ ট্রেক নামে পরিচিত। অন্নপুর্না সার্কিট ট্রেক এর অংশ হিসেবে এই ট্রেক করা যায়। বলা হয় নেপালের সর্বোচ্চ তুষারপাতের শহর এটি। হিমালয়ের একদম কাছে হওয়ায় এমনটি ধারনা করা হয়ে থাকে।

এখানকার মানুষগুলো খুবই অতিথিপরায়ণ। কমবেশি সবাই ইংরেজি বুঝে আর সবাই কাজ চালানোর জন্য যতটুকু দরকার বলতে পারে।

দর্শনীয়স্থান সমূহ

জমসমের কাছাকাছি দর্শনীয়স্থান গুলোর মধ্যে আছে –

  • মুক্তিনাথ টেম্পল
  • ধাম্বা লেক
  • ইয়াক খারকা
  • কালী গান্ধাকী নদী
  • মুস্টাং আপেল বাগান
  • ডিয়ার হিল, মুস্টাং

কিভাবে যাওয়া যায়

কাঠমন্ডু থেকে টুরিস্ট বাসে করে পোখরা, সময় লাগবে ৮ ঘন্টার মত, ভাড়া পড়বে ৭৫০ রুপী। পোখরা থেকে বাই এয়ারে যেতে পারেন, সময় লাগবে ২০ মিনিট এর মত এবং ভাড়া পড়বে ৮০-১১০ ডলার। অথবা পোখরা থেকে জীপে কিংবা বাসে জমসম যেতে পারেন। জীপে গেলে ভাড়া পড়বে ১৬০০ রুপীর মত এবং সময় লাগবে ৯-১০ ঘন্টা। আর যদি পোখরা থেকে বাসে যান তাহলে সময় লাগবে ১২-১৪ ঘন্টা এবং ভাড়া গুনতে হবে ১২০০ রুপীর মত।

আপনি চাইলে কাঠমান্ডু থেকে সরাসরি জমসম যেতে পারেন। সেক্ষেত্রে জার্নিটা একটু কস্টসাধ্য হয়ে যাবে। সময় লাগবে ১৭-১৯ ঘন্টা এবং ভাড়া পড়বে ১৬০০ রুপীর মত।

বেনী এর পর থেকে জমসম পর্যন্ত ভয়ংকর বাজে রাস্তা। পোখরা থেকে জমসম (Jomsom) এর বাস খুব একটা আরামদায়ক না। এক্ষেত্রে জীপ জার্নিটা বেশ ভালো বলা যায়।

কোথায় থাকবেন

১২০০ থেকে ২০০০ রুপী এর মধ্যে ভালো থাকার ব্যবস্থা হয়ে যাবে। কিছু হোটেলের নাম দেয়া হলো –

  • Jomsom Mountain Resort (পাঁচ তারকার সুবিধা সম্বলিত): এয়ারপোর্ট থেকে হেঁটে পৌঁছাতে ২০ মিনিট এর মত সময় লাগবে। যোগাযোগঃ  977-69-440035, 977-69-440036
  • Hotel Alka Marco Polo: এয়ারপোর্টের ঠিক উল্টোপাশে অবস্থিত। বর্ত্মান সময়ের সবথেকে চাহিদাসম্বলিত হোটেল। দুই ধরনের রুম আছে। অ্যাটাচ বাথরুম ছাড়া রুমের ভাড়া অনেকটা কম, ৮০০ রুপির মত এবং অ্যাটাচ বাথরুমসহ দুপুর/রাতের খাবার, গাড়ি সুবিধা সহ ভাড়া পড়বে ২৫০০ রুপির মত। ইন্টারনেট, মানি এক্সচেঞ্জ, রেস্টুরেন্ট, ট্রেকিং সরঞ্জামাদি, এয়ার টিকেট সব ধরনের সুবিধা এরা দিয়ে থাকে। যোগাযোগঃ 00977-9849202086
  • Hotel Trekkers-Inn: এটি এয়ারপোর্ট থেকে ১ মিনিটের পায়ে হাটা দূরত্বে অবস্থিত। ইন্টারনেট, মানি এক্সচেঞ্জ, রেস্টুরেন্ট, ট্রেকিং সরঞ্জামাদি, এয়ার টিকেট সব ধরনের সুবিধা এরা দিয়ে থাকে। ভাড়া পড়বে ৩৩৫০ রুপীর মত।

খাওয়া-দাওয়া

আনুমানিক ১০০০ রুপীতে খুব ভালো ভাবে খাওয়া হয়ে যাবে। পেট ভরে খানাপিনা করার জন্য নেপালি ডাল-ভাত থেকে শুরু করে স্টেক-স্প্যাগেটি পর্যন্ত নানান ভ্যারিয়েশনের জিনিশ পাওয়া যায়।

×

করোনা (COVID-19) ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে যা করনীয়ঃ

  • সবসময় হাত পরিষ্কার রাখুন। সাবান দিয়ে অন্তত পক্ষে ২০ সেকেন্ড যাবত হাত ধুতে হবে।
  • সাবান না থাকলে হেক্সিসল ব্যবহার করুন। হেক্সিসল না থাকলে হ্যান্ড সেনিটাইজার ব্যবহার করুন।
  • আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন, যতটুকু সম্ভব ভীড় এড়িয়ে চলুন।
  • বাজারে কিছু স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন, করলে হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • টাকা গোনা ও লেনদেনের পর হাত সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।
  • ওভার ব্রিজ ও সিড়ির রেলিং ধরে ওঠা থেকে বিরত থাকুন।
  • পাবলিক প্লেসে দরজার হাতল, পানির কল স্পর্শ করতে টিস্যু ব্যবহার করুন।
  • হাত মেলানো, কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন।
  • নাক, মুখ ও চোখ চুলকানো থেকে বিরত থাকুন।
  • হাঁচি কাশির সময় কনুই ব্যবহার করুন।
  • আপনি যদি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হয়ে থাকেন তবে মাস্ক ব্যবহার আবশ্যক নয় তবে আক্রান্ত হলে সংক্রমণ না ছড়াতে নিজে মাস্ক ব্যবহার করুন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকুন। Stay Home, Stay Safe.

দিক নির্দেশনা

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।

  1. very informative post…………….. thanks (Y)