বিদেশ সফরে হোটেল খরচ বাঁচানোর কৌশল

যুক্ত করা হয়েছে

আমরা অনেকেই ভেবে থাকি, বিদেশ সফর করতে গেলে পাসপোর্ট, ভিসা এবং ফ্লাইটচার্জ বাদ দিলে, সবচেয়ে বেশি খরচ ‌যে সমস্ত জায়গায় প্রয়োজন হয়, তার মধ্যে রয়েছে, থাকার জায়গা বা হোটেল, খাবার খরচ এবং স্থানীয় ট্রান্সপোর্ট অর্থাৎ এক জায়গা থেকে আর এক জায়গায় পৌঁছনোর খরচ।

মজার ব্যাপার ভিসা ও ফ্লাইট চার্জ বাদ দিলে, বাকি তিনটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় অর্থাৎ থাকার খরচ, খাবার খরচ এবং ট্রান্সপোর্ট খরচ ‌যদি একদম না থাকে? তাহলে বিষয়টা কেমন হয়?

না এটা কোনও গল্পকথা নয়। একশো শতাংশ বাস্তব। কারণ কিছু ট্রিক্স মাথায় রেখেই, দেশ বিদেশের বহু প‌র্যটক এই ভাবেই বিদেশ সফর করেন। এক দেশ থেকে অন্য দেশে ছুটে বেড়ান। অত্যন্ত কম খরচে ইচ্ছোমতো মুসাফির হয়ে ‌যান। এই তিনটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি আমি ধাপে ধাপে আলোচনা করবো। আজকের পর্বে থাকছে। সম্পূর্ণ বিনাপয়সায় থাকার জায়গা কী ভাবে জোগাড় করবেন?

বিস্তারিত তথ্যে ‌যাওয়ার আগে বলে রাখি, আপনি ‌যদি আমাদের চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব না করে থাকেন, তাহলে অবিলম্বে সেটি করে ফেলুন। কারণ এমন নানা ভিডিও আমরা আপলোড করলেই, তা আপনি অনায়াসে জানতে পারবেন। নয়তো হাজারো চ্যানেলের ভিড়ে খুঁজে পেতে অসুবিধা হবে।

এবার জানা ‌যাক সেই কৌশলঃ

১। সবার আগে ‌যাবেন গুগুলে। সেখানে গিয়ে সার্চ করুন কাউচ সার্ফিং (Couchsurfing)। পেজের হোম পেজটি আসার পরেই নিজের ইমেল আইডি বা ফেসবুক আইডি দিয়ে লগ ইন করুন।
২। আপনি ‌যেখানে ‌যেতে চাইছেন, সেই জায়গা লিখুন। ধরা ‌যাক ফ্রান্স (France)। এখানে সার্চ করার পরেই আসবে ফ্রান্সের কোথায় থাকতে চাইছেন? উদাহরণ স্বরূপ ধরে নিলাম প্যারিস।
৩। প্যারিসে ক্লিক করার পরেই দেখতে পাবেন মূলত দুটি কলাম। একটি লোকাল হোস্ট এবং আপকামিং ভিজিটরজস। এখানে বলে রাখি। লোকাল হোস্ট মানে, ‌যারা নিজেদের বাড়িতে বিদেশীদের টাকার বিনিময়ে বা সম্পূর্ণ বিনাপয়সায় থাকার প্রস্তাব দিচ্ছে। আর আপকামিং ভিডিটরস মানে। এই সব প‌র্যটকেরা প্যারিসে ‌যাওয়ার প্ল্যান করেছেন।
৪। আপনি হোস্টের সঙ্গে ‌যোগা‌যোগ করবেন। তাই হোস্টে ক্লিক করলেই পরবর্তী পেজ আসবে। সেখানে পূরণ করতে হবে, আপনি কবে প্যারিস ‌যাচ্ছেন এবং কতদিন থাকবেন। এবং আপনার সঙ্গী আরও কেউ আছে কিনা বা আপনি একা কিনা।
৫। ওই ইনফোগুলি ক্লিক করার পরেই, পরের পেজে আসবে। কারা বিদেশী প‌র্যটকদের জন্য নিজেদের বাড়ি খুলে রেখেছে। এদের মধ্যে আপনি বাচাই করতে পারেন। এবং ‌যোগা‌যোগ করতে পারেন।
৬। ধরা ‌যাক, এই ব্যক্তির সঙ্গে আমি ‌যোগা‌যোগ করতে চাই। এখানে ক্লিক করে পরের পেজে গেলেই দেখতে পাওয়া ‌যাবে…এই ব্যক্তির ডিটেল।
৭। এনাকে আপনি নিজের রিক্যোয়েস্ট পাঠাতে পারেন। এই হোস্ট আপনাকে সেই দিনমতো জায়গা দিতে পারবে কিনা তা ওনার সঙ্গে আলোচনা করে নিতে পারেন।
৮। আবার মোর অপশনে গিয়ে আপনি এই ব্যক্তিকে নিজের অ্যাকাউন্টে অ্যাড করে রাখতে পারেন। আর আপত্তিকর কিছু দেখলে ব্লকও করে দিতে পারেন।
৯। তবে এনাদের সঙ্গে ‌যোগা‌যোগ করার আগে, নিজের প্রোফাইলটি ভালো করে তৈরি করে নেবেন। কারণ, আপনি ‌যে সত্যি ব্যক্তি তা প্রাথমিক প্রমাণ দিতে হবে।
১০। ‌যে হোস্টকে আপনি পছন্দ করছেন, তারও প্রোফাইলটি দেখে নেবেন। মনে রাখবেন, কাউচসার্ফিং তাদের মতো করে প্রোফাইল চেক করে। ‌যাতে হোস্ট ও প‌র্যটকের প্রাথমিক বিশ্বাস‌যোগ্যতা তৈরি হয়। প্রোফাইলের পাশাপাশি রেফারেন্স, কার কত বন্ধু লিস্ট সেগুলো দেখে নেওয়া উচিত।

এই কাউচসার্ফিং নিয়ে ভিন্ন লোকের ভিন্ন মত রয়েছে। কারণ, অনেকেই বিরূপ প্রতিক্রিয়া দিয়ে থাকেন। তবু বলে রাখি সারা বিশ্ব চলছে বিশ্বাসের উপরে। তাই, লোকাল হোস্টের বন্ধু, বিভিন্ন প‌র্যটকদের রেফারেন্স, রিভিউ দেখেই লোকাল হোস্ট বাছাই করবেন, তাহলে সমস্যা থাকবে না। আর ভালো হোস্ট পেয়ে গেলে, থাকার পাশাপাশি খাওয়াদাওয়ার বন্দবোস্ত হয়ে ‌যেতে পারে।

তাহলে আর দেরি কেন? বেরিয়ে পড়ুন ব্যাগপ্যাক নিয়ে।