সদাসদী জমিদার বাড়ি

ভালো লেগেছে
0
ট্রিপ
১ দিন
খরচ
৯০০ টাকা

সদাসদী জমিদার বাড়ি (Sodasodi Zamindar Palace) নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজার উপজেলার গোপালদী পৌরসভার সদাসদী গ্রামে অবস্থিত প্রাচীন একটি বাড়ি। আড়াইহাজার উপজেলা থেকে প্রায় ৭/৮ কিলোমিটার পূবে প্রায় ৬০ শতাংশ জমির উপর প্রতিষ্ঠিত সদাসদী জমিদার বাড়িটি যার মূল নাম গোপালদী জমিদার বাড়ি (Gopaldi Jomidar Bari) যেটি ১৩২৩ বঙ্গাব্দে গড়ে তোলা হয়েছিলো বলে জানা গেছে।

ইতিহাস থেকে জানা যায়, একসময় গোপালদীতে তিনজন জমিদার ছিলেন – সর্দার, তেলি ও ভূঁঞা। শ্রী প্রসন্ন কুমার সর্দার ছিলেন অত্র এলাকার সবচেয়ে বড় জমিদার। সর্দার বাড়ির বিশাল দ্বিতল দালানের ভেতরের শৈল্পিক কারুকাজ দেখে মুগ্ধ হবেন যে কেউ। যদিও কালের আঁচড়ে অনেক কারুকাজ নষ্ট হয়ে গেছে। বাড়িটির নেই সেই আগের সৌন্দর্য। তবে একটু সংস্কার করলেই আগের রূপ ফিরিয়ে আনা সম্ভব। দালানের সামনের দিকে সুদৃশ্য বারান্দা। বারান্দার প্রতিটি পিলার কারুকার্য খচিত। সামনে সুন্দর উঠান। সর্দার বাড়ির উত্তর দিকে পুকুর ঘাট। বিশাল পুকুরের চারদিকে শান বাঁধানো ঘাট। দক্ষিণ দিকে মূল দুটি ঘাট। একটি ঘাটে পুরুষ, অন্যটিতে মেয়েরা গোসল করতো। এখনো পুকুরঘাটের সিঁড়িগুলো অক্ষত অবস্থায় রয়েছে।

সুবিশাল সদাসদী জমিদার বাড়িতে ১০১টি কক্ষ ছাড়াও বাড়ির চারদিকে কারুকার্য খচিত বিশাল ৪টি ভবন রয়েছে। জমিদার বাড়ির প্রতিটি কক্ষেই রয়েছে কারুকার্য খচিত দরজা জানালা। জমিদার বাড়ির সীমানায় শত শত বিরল প্রজাতির বৃক্ষ রয়েছে।

সদাসদীর আরেকটি জমিদারবাড়ি হলো ভুঁঞাদের। তাঁরা দুই ভাই — হরিচন্দ্র ভুঁঞা ও রামকানাই ভুঁঞা। তাঁদের জামাই ঋষিকাজ বাবুও ছিলেন জমিদার। এই বাড়ির সর্বশেষ জমিদার জগবন্ধু বাবু। তবে জমিদারি দেখাশোনা করতেন তাঁর স্ত্রী বিনোদিনী সাহা। তিন বাড়ির ভবনগুলোর সব কিছুই আজ ধ্বংসের দিকে। দেয়ালে দেয়ালে জন্মেছে পরগাছা। জড়িয়ে ধরেছে শেকড়বাকড়। কয়েক জায়গায় দেয়াল ভেঙে পড়েছে, খসে পড়েছে পলেস্তারা।

সদাসদী জমিদার বাড়ি যাওয়ার উপায়

রুট ১ঃ সায়েদাবাদ থেকে অভিলাস পরিবহন বাস ছাড়ে। ভাড়া ৬৫ টাকা। এটা মদন পুর দিয়ে যাবে। অথবা গুলিস্তান থেকে দোয়েল /সদেশ পরিবহন এ মদনপুর ৪৫ টাকা নেমে আড়াইহাজার এর সি এন জি ৫০ টাকা।

রুট ২ঃ কলাবাগান থেকে মেঘলা পরিবহন বাস ছাড়ে। ভুলতা/গাউসিয়া। ভাড়া ৬৫ টাকা। গাউসিয়া নেমে একটু সামনে যেয়ে লোকাল সি এন জি তে আড়াইহাজার বাজার। ভাড়া ৩০ টাকা।

রুট ৩ঃ কুরিল ফ্লাইওভার এর ৩০০ ফিট ক্রসিং থেকে লোকাল ট্যাক্সিতে গাউসিয়া। ভাড়া ৮০ টাকা। গাউসিয়া নেমে একটু সামনে যেয়ে লোকাল সি এন জি তে আড়াইহাজার বাজার। ভাড়া ৩০ টাকা।

আড়াইহাজার বাজার থেকে লোকাল সি এন জি তে সোজা গোপালদী পৌরসভার সদাসদী রোডের জমিদার বাড়ি, ভাড়া ১৫ টাকা। স্থানীয়রা সদাসদী জমিদার বাড়িকে “ভূঁইয়া বাড়ী” নামেই বেশী চিনেন।

কোথায় থাকবেন

ঢাকার খুব কাছে হোয়ার কারনে এক দিনের মধ্যেই সদাসদী জমিদার বাড়ি ঘুরে আসতে পারেন। সে ক্ষেত্রে রাতে থাকার জন্যে আপনার কোন চিন্তা করতে হবে না। তবে যারা দূর থেকে যাবেন তাদের জন্য নারায়ণগঞ্জ সদরে থাকার বেশ ভালো ব্যবস্থা আছে। এদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো – হোটেল মেহরান, হোটেল সোনালি, হোটেল নারায়ণগঞ্জ, হোটেল সুগন্ধা, হোটেল সুরমা ও হোটেল রুপায়ন ইত্যাদি।

এছাড়া আরও দর্শনীয় স্থানগুলো

সোনারগাঁ লোক শিল্প জাদুঘরপানাম নগরসোনারগাঁ তাজমহলজিন্দা পার্কবারদীর লোকনাথ ব্রহ্মচারীর আশ্রম, মুড়াপাড়া জমিদার বাড়ি, সুবর্ণ গ্রাম পার্ক রিসোর্ট, বন্দরপাড়া মসজিদ, সোনাকান্দা কেল্লা, গোয়ালপাড়া হুসেন শহার মসজিদ, কিল্লারপুলে বিবি মরিয়মের মাজার প্রভৃতি।

×

প্রতিটি জায়গা পরিদর্শনের পাশাপাশি সৌন্দর্য রক্ষা করাও প্রত্যেকের নৈতিক দায়িত্ব। এক্ষেত্রে সকলকে দায়িত্বশীল আচরণ করতে হবে।

দিক নির্দেশনা

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।