শীলবান্ধা

শীলবান্ধা ঝর্ণা

শীলবান্ধা ঝর্ণা (Shilabandha Jhorna), বান্দরবান এর রোয়াংছড়ি উপজেলার কচ্ছপতলী ইউনিয়নে অবস্থিত। নাফাখুম ও রেমাক্রীর চেয়ে দূরত্বও কম। অল্প সময়ে সহজে যাওয়া যায় এ পর্যটন স্পটে। দূরত্ব কম ও যাতায়াত ব্যবস্থা সহজ হওয়ায় প্রতিনিয়ত পর্যটকরা ছুটে যাচ্ছেন শীলবান্ধা ঝর্ণা ও দেবতাখুম এর সৌন্দর্য্য দেখতে। অবস্থানঃ রোয়াংছড়ি, … বিস্তারিত

দেবতাখুম, রোয়াংছড়ি, বান্দরবান

দেবতাখুম, রোয়াংছড়ি, বান্দরবান ভ্রমণ

জীবনে প্রথম বান্দরবান গেলাম আর ঘোরাটা শুরু করলাম দেবতাখুম দিয়ে। মেঘনা ব্রিজের কল্যানে ৬ঘন্টা জ্যাম খেয়ে সর্বোমোট ১৫ ঘন্টার ম্যারাথন জার্নি শেষ করে বান্দরবান গিয়ে নামলাম রাত ১০.৪০ এ। নেমে বিপদেই পড়লাম। আমার রুম তো ঠিক করা রোয়াংছড়ি তে। আর ওই দিন (২১/০২/১৯) তো কোথাও কোন সিট ফাঁকা নেই। … বিস্তারিত

দেবতাখুম, বান্দরবান

দেবতাখুম ভ্রমণ

আপনি কি বন্য পরিবেশে সত্যিকারের কায়াকিং-এর অভিজ্ঞতা নিতে চান, খাড়া ৬০০ ফিট দুই পাহাড়ের মাঝে ভেলায় ভাসতে চান তাহলে চলে যান বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলার কচ্ছপতলি ইউনিয়নের অন্তর্গত তারাসা খালের পাড়ে মারমা পাড়া “শীলবান্ধা”র দেবতাখুমে। দেবতাখুম বান্দরবানের থানচি উপজেলার নাফাখুম, ভেলাখুম, সাতভাইখুম, আমিয়াখুমের মতই বিশাল বিশাল পাথরখন্ড এবং পাহাড়ের ভাজে আরেকটি খুমের স্বর্গরাজ্য। আপনি বান্দরবানের যতই … বিস্তারিত

দেবতাখুম, বান্দরবান

দেবতাখুম

দেবতাখুম (Debotakhum), বান্দরবান জেলার রোয়াংছড়ি উপজেলায় অবস্থিত। নৈসর্গীক বান্দরবানকে বলা হয় খুমের স্বর্গরাজ্য আর এই রাজ্যের শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট নিঃসন্দেহে দেবতাখুম এর কাছেই যাবে। স্থানীয়দের মতে প্রায় ৫০-৭০ ফুট গভীর এই খুমের দৈর্ঘ্য ৬০০ ফুট যা ভেলাখুম থেকে অনেক বড় এবং অনেক বেশী বন্য। দেবতাখুম … বিস্তারিত