সাউথ টাউন মসজিদ

ভালো লেগেছে
2
ট্রিপ
১ দিন
খরচ
৩০০ টাকা

সাউথ টাউন মসজিদ (South Town Masjid) ঢাকার কাছেই কেরানীগঞ্জের সাউথ টাউন আবাসিক প্রকল্পের মধ্যে অবস্থিত। নান্দনিক গঠন আর অপূর্ব স্থাপত্যশৈলীর কারনে এই মসজিদ ইতিমধ্যে মানুষের কাছে আকর্ষণীয় রুপে ধরা দিয়েছে। মসজিদে মূলত ধর্মপ্রাণ মানুষেরা প্রাথর্নার জায়গা আর কিছু মসজিদের স্থাপনা নজড় কেড়ে নেয় সকলের। নান্দনিক গঠন আর অপূর্ব স্থাপত্যশৈলীর ধরণ ধারণে মসজিদের নির্মাণ প্রায় এই উপমহাদেশে ইসলাম প্রচারের শুরু থেকেই চলে আসছে। এমনি এক স্থাপত্যশৈলী মসজিদ হলো সাউথ টাউন মসজিদ।

সাউথ টাউন মসজিদটি নির্মাণ করতে প্রায় দুই বছর সময় লেগেছে৷ এই মসজিদে একসাথে প্রায় ৬০০ মানুষ নামাজ আদায় করতে পারে৷ এতে প্রধান ফটক আছে তিনটি। দুই পাশে আছে আরও দুটি দরজা। চারপাশে প্রচুর দু’স্তরের জানালা তৈরি করে আলো ঢোকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। যে কেউ দূর থেকে দেখলে জায়গাটা মনে করবে যেনো স্বর্গের কোন প্রাসাদ বা কোন রাজা বা জমিদার এর সদ্য তৈরি করা কো অট্টালিকা। অপরূপ সৌন্দর্যে ঘেরা আর চোখ ধাঁধানো ডিজাইনের মিশ্রণের ঘেরা এই মসজিদটি সবাইকে মুগ্ধ করার জন্য যথেষ্ঠ।

যেভাবে যাবেন

ঢাকার যে কোন জায়গা থেকে প্রথমে যাত্রাবাড়ী চলে আসবেন। যাত্রাবাড়ী থেকে ৫টাকা ভাড়ায় লেগুনা বা বাসে করে নামবেন পোস্তগোলা ব্রিজ এ। পোস্তগোলা ব্রিজ পাড় হওয়ার জন্য সিএনজি আছে। ভাড়া নিবে ১০ টাকা। সিএনজি তে পোস্তগোলা ব্রিজের ওপার চলে আসার পর সেখান থেকে লেগুনা আছে। লেগুনায় কেরানীগঞ্জ সেন্ট্রাল জেল গেট এ নেমে যাবেন। ভাড়া নিবে ২৫ টাকা। তারপর সেখান থেকে ৪/৫ মিনিট হাটলেই হাতের ডানে পড়বে সাউথ টাউন আবাসিক প্রকল্প। গেটের ভিতর ঢুকে ৬-৭ মিনিট হাঁটলেই পেয়ে যাবেন অপরুপ সৌন্দর্যের মসজিদ টিকে।

যে কোন এক সকালে বা বিকেলে সময় করে ঘুরে আসতে পারেন সকলে মিলে।

×

করোনা (COVID-19) ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে যা করনীয়ঃ

  • সবসময় হাত পরিষ্কার রাখুন। সাবান দিয়ে অন্তত পক্ষে ২০ সেকেন্ড যাবত হাত ধুতে হবে।
  • সাবান না থাকলে হেক্সিসল ব্যবহার করুন। হেক্সিসল না থাকলে হ্যান্ড সেনিটাইজার ব্যবহার করুন।
  • আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন, যতটুকু সম্ভব ভীড় এড়িয়ে চলুন।
  • বাজারে কিছু স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন, করলে হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • টাকা গোনা ও লেনদেনের পর হাত সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।
  • ওভার ব্রিজ ও সিড়ির রেলিং ধরে ওঠা থেকে বিরত থাকুন।
  • পাবলিক প্লেসে দরজার হাতল, পানির কল স্পর্শ করতে টিস্যু ব্যবহার করুন।
  • হাত মেলানো, কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন।
  • নাক, মুখ ও চোখ চুলকানো থেকে বিরত থাকুন।
  • হাঁচি কাশির সময় কনুই ব্যবহার করুন।
  • আপনি যদি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হয়ে থাকেন তবে মাস্ক ব্যবহার আবশ্যক নয় তবে আক্রান্ত হলে সংক্রমণ না ছড়াতে নিজে মাস্ক ব্যবহার করুন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকুন। Stay Home, Stay Safe.

  • 60
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
    60
    Shares
দিক নির্দেশনা

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।