কমলা রানীর দিঘী, রাজনগর

ভালো লেগেছে
0

সিলেট বিভাগের মৌলভীবাজার জেলার রাজনগর থানায় কমলারাণীর দীঘি অবস্থিত যা সাগর দিঘি নামেও পরিচিত। দীঘির অবস্থান ধরা হয় ১২ একর ১২ বিগা ১২ পোয়া ১২ ছটাক জায়গা। এ দীঘির পশ্চিম পাশে অবস্থিত হযরত শাহজালাল (রঃ) এর অন্যতম সফর সঙ্গী ও ৩৬০ আউলিয়ার একজন শাহ কুতুব উদ্দিন (রঃ) চির নিদ্রায় শায়িত রয়েছেন। তার মাজার মোবারক জিয়ারতের জন্য দেশ-বিদেশ থেকে ভক্ত মুরিদগণের সমাবেশ ঘটে। মাজারের পাশে একটি জামে মসজিদ, মাজার অফিস ও মহিলাদের জন্য নির্ধারিত নামাজের স্থান রয়েছে। পর্যাপ্ত অর্থাভাবে অসমাপ্ত কাজ সমাপ্তকরণ ও রণাবেণের ব্যবস্থা সম্ভবপর হয়ে উঠছে না। পশ্চিম পাড়ে মুল ঘাটের উপরে পুনরায় আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে নতুন ভাবে নির্মিত হওয়ায় মুল ঘাটের স্থাপত্য শৈলী বিলীন হয়ে গেছে। বর্তমান ঘাটের চেয়ে মুল ঘাটটির আয়তন এবং সিঁড়ির সংখ্যাও ছিল অনেক বেশি। হযরত শাহ কুতুব উদ্দিন (রঃ) বার্ষিক জলসা ৬ ফালগুন অনুষ্ঠিত হয়। জলসাতে প্রচুর ধর্মানুরাগী ও ভক্তদের আগমন ঘটে। সে কথিত দীঘিতে যুক্তরাজ্য প্রবাসী কাদির মিয়া পরিকল্পিত মাছ চাষ করছেন। প্রচুর মৎস্য প্রতিবছর উৎপাদন হচ্ছে। হযরত শাহ কুতুব উদ্দিন (রঃ) এর দরগাহের খাদেম জানান, কমলা রানীর মৃত্যুর পর রাজা সুবিদ নারায়ন সম্ভবতঃ ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছিলেন। দীঘির পশ্চিম পাড়ে রাজা ও তার দুই পুত্র সন্তানের কবরের ধ্বংসস্তুপ রয়েছে। অনেক ইতিহাস ঐতিহ্য বহন করে যাচ্ছে কথিত কমলা রানী দীঘি ও হযরত শাহ কুতুব উদ্দিন (রঃ) এর মাজার শরীফ।

জিপিএস কোর্ডিনেটঃ 24°30’51.31″N, 91°21’30.22″E

কিভাবে যাবেনঃ

মৌলভীবাজার হতে রাজনগর বাজারে এসে রাজনগর-বালাগঞ্জ রাস্তা দিয়ে রিক্সা, অটো রিক্সা বা বাসে করে সাগর দিঘির পাড় বললে এখানে নামিয়ে দেবে।

×

করোনা (COVID-19) ভাইরাস থেকে সতর্ক থাকতে যা করনীয়ঃ

  • সবসময় হাত পরিষ্কার রাখুন। সাবান দিয়ে অন্তত পক্ষে ২০ সেকেন্ড যাবত হাত ধুতে হবে।
  • সাবান না থাকলে হেক্সিসল ব্যবহার করুন। হেক্সিসল না থাকলে হ্যান্ড সেনিটাইজার ব্যবহার করুন।
  • আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন, যতটুকু সম্ভব ভীড় এড়িয়ে চলুন।
  • বাজারে কিছু স্পর্শ করা থেকে বিরত থাকুন, করলে হাত সাবান দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • টাকা গোনা ও লেনদেনের পর হাত সাবান দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন।
  • ওভার ব্রিজ ও সিড়ির রেলিং ধরে ওঠা থেকে বিরত থাকুন।
  • পাবলিক প্লেসে দরজার হাতল, পানির কল স্পর্শ করতে টিস্যু ব্যবহার করুন।
  • হাত মেলানো, কোলাকুলি থেকে বিরত থাকুন।
  • নাক, মুখ ও চোখ চুলকানো থেকে বিরত থাকুন।
  • হাঁচি কাশির সময় কনুই ব্যবহার করুন।
  • আপনি যদি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হয়ে থাকেন তবে মাস্ক ব্যবহার আবশ্যক নয় তবে আক্রান্ত হলে সংক্রমণ না ছড়াতে নিজে মাস্ক ব্যবহার করুন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকুন। Stay Home, Stay Safe.

দিক নির্দেশনা

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।