গোরার মসজিদ

জন
৩ মিনিটস
জন

গোরার মসজিদটি (Gorar Masjid) ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ উপজেলা শহর থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে বারোবাজার ইউনিয়নের বেলাট দৌলতপুর গ্রামে অবস্থিত। এই বারোবাজার এলাকাটি ঐতিহাসিকভাবে খুবই সমৃদ্ধ। এখানে অনেকগুলো প্রাচীন মসজিদ রয়েছে। গোরার মসজিদ তাদেরই একটি। গোরাই নামে একজন সুফী এ অঞ্চলে বসবাস করতেন। তার নামানুসারে এই মসজিদকে গোরাই মসজিদ হিসেবে ডাকা হয়। মসজিদের পাশেই তার কবর রয়েছে। প্রত্নতত্ত্ববিদগণের মতে, মসজিদটি হোসেন শাহ বা তার পুত্র নসরত শাহ এর শাসনামলে তৈরি করা হয়েছে। মসজিদটিতে একটি বড় ও তিনটি ছোট গম্বুজ রয়েছে। ১৯৮৩ সালে বারোবাজারে খনন কাজ শুরু হলে আরও বেশ কয়েকটি মসজিদের সাথে এই মসজিদটিও আবিষ্কৃত হয়।

গোরার মসজিদের পূর্বদিকে আছে পুকুর ও ওজু করার সুব্যবস্থা। মসজিদে পাঁচ ফুট প্রশস্ত দেওয়াল আছে। বারান্দাসহ মসজিদটি বর্গাকৃতির। মূল প্রার্থনা কক্ষের চার কোনায় অষ্টভুজাকৃতির চারটি কুরুজ সংযুক্ত আছে। বারান্দার দুই পাশে পৃথক আকৃতির আরও দুটি বুরুজ সংযুক্ত আছে। মূল প্রার্থনা কক্ষের পূর্বদিকে কৌণিক খিলানযুক্ত তিনটি প্রবেশপথ (মধ্যবর্তী প্রবেশপথটি বৃহৎ) এবং উত্তর ও দক্ষিণ দিকে একটি করে কৌণিক খিলানযুক্ত প্রবেশপথ আছে যা এখন জানালা হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে। মসজিদের দেওয়ালে পোড়ামাটির পাতা-ফুলে শোভিত শিকল, ঘণ্টাসহ বিভিন্ন নকশা আছে। বাইরের দেওয়াল পুরোটাই পোড়ামাটির কারুকার্যে অলংকৃত, যা দর্শনার্থীদের অবাক করে।

গোরার মসজিদ যাওয়ার উপায়

দেশের যে কোনো স্থান থেকে ঝিনাইদহ জেলার কালীগঞ্জ উপজেলা শহরে পৌঁছতে হবে। ঝিনাইদহ শহর থেকে কালীগঞ্জ উপজেলা ২০ কিলোমিটার পথ। বাস বা সিএনজি যোগে কালীগঞ্জ উপজেলা বাসস্ট্যান্ড নেমে সেখান থেকে ভ্যানে বা সিএনজি যোগে  বারোবাজার ইউনিয়নে   গোরার মসজিদ দেখতে যেতে পারেন। ঝিনাইদহ থেকে কালীগঞ্জ উপজেলায় ৪০-৪৫ মিনিটের মত সময় লাগে আর ভাড়া পড়বে ৪০-৫০ টাকার মতো।

কোথায় থাকবেন

নলডাঙ্গা রাজবাড়ি রিসোর্ট এর কটেজে প্রয়োজনে রাত্রি যাপন করতে পারবেন। কালীগঞ্জ উপজেলা ডাকবাংলোতে থাকতে পারবেন তার জন্য আগে থেকে অনুমতি নিয়ে রাখতে হবে। এছাড়া ঝিনাইদহ শহরে বেশ কিছু হোটেল রয়েছে যেখানে রাত্রি যাপন করতে পারেন।

  • হোটেল জামান – 01711152954
  • ঝিনাইদহ সার্কিট হাউজ – 01733074606
  • সৃজনী রেস্ট হাউস – 045162497
  • ব্রাক রেস্ট হাউস – 0451-62880 
দিক নির্দেশনা