ক্যাফে ২৪ পার্ক

ভালো লেগেছে
1

ক্যাফে ২৪ পার্ক (Cafe 24 Park) চট্টগ্রামের ভাটিয়ারীতে অবস্থিত সেনাবাহিনী পরিচালিত একটি পার্ক। ভাটিয়ারী থেকে হাটহাজারী সংযোগ সড়কে ৭ কিমি পর এবং চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট এর একটু আগেই ক্যাফে ২৪ পার্কটি অবস্থিত৷ এখানে রয়েছে দৃষ্টিনন্দন পার্ক, বিভিন্ন প্রকার রাইড, আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন ফুড আইটেম পরিবেশনায় একটি রেস্টুরেন্ট। ক্যাফে ২৪ পার্কটি খুবই অসাধারণ এক‌টি বেড়ানোর জায়গা এবং এই পার্কের ভিতর ও বাহির সবখানে সাজানো গোছানো ও খুবই পরিষ্কার। প্রশিক্ষনের সময় সেনাবাহিনী যেসব উপকরণ ব্যবহার করে থাকেন এখানে সেসবের গুটিকতক সাধারণ জনগণের জন্য বানানো হয়েছে। নির্দিষ্ট ফি এর বিনিময়ে দর্শনার্থীরা এগুলো ব্যবহার করে সম্যক ধারণা নিতে পারবে। গতানুগতিক শিশুপার্ক বা এমিউজমেন্ট পার্কগুলোতে যেসব রাইড থাকে ক্যাফে ২৪ পার্ক তাঁর পুরোটাই ব্যতিক্রম।

ক্যাফে ২৪ পার্ক এর যে কোন রাইডে যতবার খুশি উঠতে পারা যাবে। এখানের কিছু কিছু রাইডে নিরাপত্তার কারনে একত্রে একজনের বেশি ওঠা নিষেধ। প্রতিটি রাইডে চড়তে গিয়ে আপনি অনুভব করবেন অদ্ভুত রকমের থ্রিলিং। সেই সাথে রোমাঞ্চ ও শতভাগ অ্যাডভেঞ্চারের স্বাদ তো আছেই। আর আছে দুর্দান্ত আনন্দ!

এ পার্কের হাতের ডানপাশে রয়েছে গ্রাম্য পরিবেশের মতো করে কিছু ঘর যেগুলোর মধ্যে বাঙালী ঘর এর পাশাপাশি রয়েছে চাকমা, মুরং, ত্রিপুরা ধরনার ঘর এবং বাম পাশে রয়েছে সুবিশাল একটি লেক যেখানে রয়েছে মাছ ধরার ব্যবস্থা। সামনেই রয়েছে এডভেঞ্চার ট্রেইল (Adventure Trail) এর একটি পাহাড়৷

কি আছে এডভেঞ্চার ট্রেইলে

এডভেঞ্চার ট্রেইলের শুরুতেই নেট ওয়ে। ওঠার জন্য ভালো। তুলনামূলক সমতল, অল্প ঢাল বিশিষ্ট। উপরের ঝুলন্ত রশি ধরে নিচের রশি বরাবর পা রেখে হেঁটে যেতে হয়। জালে পা পড়লেই নিচের দিকে গেড়ে যাবেন। তখন হাঁটতে কষ্ট হবে। এরপরে পাবেন স্পাইডার নেট। এটি অনেকটাই মাকড়সার জালের মতোই। রশিতে পা রেখে এবং সুবিধামতো উচ্চতার রশি ধরে দেখে দেখে হেঁটে সামনের দিকে যেতে হয়। এখানে আছে মাটি থেকে প্রায় ১০ ফুট উঁচুতে কাঠ নির্মিত একটি গোলক ট্রেইল। গোলকের ভেতর দিয়ে ক্রল করে করে এগিয়ে যেতে হবে। এই গোলকের দৈর্ঘ্য হবে ২৫-৩০ ফুট। আরও আছে এয়ার ওয়াকার। ঝুলন্ত টায়ারের উপর দিয়ে হেঁটে যেতে হবে। এটার ব্যাপারে বেশ সতর্ক থাকতে হবে কারন এক টায়ারে পা রাখলে আর এক টায়ার অনেকটাই সরে যায়। তখন সেটায় আরেক পা দেয়া অনেক ব্যালেন্সের একটা ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। এরকম আরও বেশ কয়েকটি ট্রেইলের স্বাদ নিতে পারবেন এডভেঞ্চার ট্রেইলে।

ক্যাফে ২৪ পার্ক এর প্রবেশমূল্য

ক্যাফে ২৪ পার্ক এর প্রবেশমূল্য ধরা হয়েছে ৫০ টাকা, ছোট বাচ্চাদের জন্য ৩০ টাকা এবং এডভেঞ্চার ট্রেইল এর টিকেট ধরা হয়েছে ৫০ টাকা।

ক্যাফে ২৪ পার্ক যাওয়ার উপায়

ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম যেতে চাইলে কমলাপুর টার্মিনাল থেকে বিআরটিসি করে আর সায়দাবাদ বাস ষ্টেশন থেকে সৌদিয়া, গ্রীনলাইন, সিল্ক লাইন, সোহাগ, বাগদাদ এক্সপ্রেস, ইউনিক প্রভৃতি বাস করে আপনি চট্টগ্রাম যেতে পারেন। গ্রিনলাইন, সোহাগ, সৌদিয়া, টি আর, হানিফ সাধারণ বাসে ভাড়া ৪০০-৫০০ টাকা।

সিলেট থেকে সড়ক ও রেলপথে চট্টগ্রাম আসা যায়। সড়কপথে গ্রিনলাইন পরিবহনের এসি, নন এসি বাস যায় চট্টগ্রাম। এছাড়া সিলেট রেলওয়ে স্টেশন থেকে সপ্তাহের শনিবার ছাড়া প্রতিদিন সকাল ১০টা ১৫ মিনিটে আন্তনগর পাহাড়িকা এক্সপ্রেস, সপ্তাহের রবিবার ছাড়া প্রতিদিন রাত ৯টা ২০ মিনিটে আন্তনগর উদয়ন এক্সপ্রেস এবং সপ্তাহের প্রতিদিন রাত ১০টা ৩০ মিনিটে মেইল ট্রেন জালালাবাদ এক্সপ্রেস ছেড়ে যায় চট্টগ্রামের উদ্দেশে। ভাড়া ১৭৫ থেকে ১২০০ টাকা।

ট্রেনে বা রেলপথে চট্টগ্রাম

ট্রেনে ঢাকা-চট্টগ্রামের রুটে মহানগর প্রভাতী ঢাকা ছাড়ে সকাল ৭টা ৪০ মিনিটে, চট্টলা এক্সপ্রেস সকাল ৯টা ২০ মিনিটে, মহানগর গোধূলি ঢাকা ছাড়ে বিকেল ৩টায়, সুবর্ণ এক্সপ্রেস ঢাকা ছাড়ে বিকেল ৪টা ২০ মিনিটে, তূর্ণা ঢাকা ছাড়ে রাত ১১টায়। ভাড়া ১৬০ থেকে ১১০০ টাকা।

বিমানে বা আকাশপথে চট্টগ্রাম

ঢাকা থেকে বাংলাদেশ বিমান (০২-৯৫৬০১৫১-১০), জিএমজি এয়ারলাইনস (০২-৮৯২২২৪৮) ও ইউনাইটেড এয়ার (০২-৮৯৫৭৬৪০), রিজেন্ট এয়ারে (০২-৮৯৫৩০০৩) সরাসরি চিটাগং যাওয়া যায়।

চট্টগ্রামের অক্সিজেন মোড় থেকে সিএনজি’তে চড়ে বড় দীঘির পাড় যাবেন। ভাড়া জনপ্রতি ১০ টাকা। সেখান থেকে ভাটিয়ারির লেগুনা বা সিএনজি’তে চড়ে একটু সামনে গেলেই ক্যাফে ২৪ পার্ক। লেগুনাতে গেলে ভাড়া পড়বে জনপ্রতি ১৫ টাকা আর সিএনজিতে গেলে ভাড়া পড়বে জনপ্রতি ২৫ টাকা।

কোথায় থাকবেন

চট্টগ্রামে নানান মানের হোটেল আছে। নীচে কয়েকটি বাজেট হোটেলে নাম ঠিকানা দেয়া হলো। এগুলোই সবই মান সম্পন্ন কিন্তু কম বাজেটের হোটেল।

  • হোটেল প‌্যারামাউন্ট, স্টেশন রোড, চট্টগ্রাম : নুতন ট্রেন স্টেশনের ঠিক বিপরীতে। আমাদের মতে বাজেটে সেরা হোটেল এটি। সুন্দর লোকেশন, প্রশস্ত করিডোর, এত বড় কড়িডোর ফাইভ স্টার হোটেলেও থাকে না। রুমগুলোও ভালো। ভাড়া নান এসি সিঙ্গেল ৮০০ টাকা, ডাবল ১৩০০ টাকা, এসি ১৪০০ টাকা ও ১৮০০ টাকা। বুকিং এর জন্য : ০৩১-২৮৫৬৭৭১, ০১৭১-৩২৪৮৭৫৪
  • হোটেল এশিয়ান এসআর, স্টেশন রোড, চট্টগ্রাম : এটাও অনেক সুন্দর হোটেল। ছিমছাম, পরিছন্ন্ হোটেল। ভাড়া : নন এসি : ১০০০ টাকা, নন এসি সিঙ্গেল। এসি : ১৭২৫ টাকা। বুকিং এর জন্য – ০১৭১১-৮৮৯৫৫৫
  • হোটেল সাফিনা, এনায়েত বাজার, চট্টড়্রাম : একটি পারিবারিক পরিবেশের মাঝারি মানের হোটেল। ছাদের ওপর একটি সুন্দর রেস্টুরেন্ট আছে। রাতের বেলা সেখানে বসলে আসতে ইচ্ছে করবেনা। ভাড়া : ৭০০ টাকা থেকে শুরু। এসি ১৩০০ টাকা। বুকিং এর জন্য – ০৩১-০৬১৪০০৪
  • হোটেল নাবা ইন, রোড ৫, প্লট-৬০, ও,আর নিজাম রোড, চট্টগ্রাম। একটু বেশী ভাড়ার হোটেল। তবে যারা নাসিরাবাদ/ও আর নিজাম রোড এলাকায় থাকতে চান তাদের জন্য আদর্শ। ভাড়া : ২৫০০/৩০০০ টাকা। বুকিং এর জন্য – ০১৭৫৫-৫৬৪৩৮২
  • হোটেল ল্যান্ডমার্ক, ৩০৭২ শেখ মুজিব রোড, আগ্রাবাদ, চট্টগ্রাম : আগ্রাবাদে থাকার জন্য ভালো হোটেল। ভাড়া-২৩০০/৩৪০০ টাকা। বুকিং এর জন্য: ০১৮২-০১৪১৯৯৫, ০১৭৩১-৮৮৬৯৯৭
×

প্রতিটি জায়গা পরিদর্শনের পাশাপাশি সৌন্দর্য রক্ষা করাও প্রত্যেকের নৈতিক দায়িত্ব। এক্ষেত্রে সকলকে দায়িত্বশীল আচরণ করতে হবে।

দিক নির্দেশনা

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।