রবীন্দ্রনাথের শ্বশুরবাড়ি,দক্ষিনডিহি

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের (Rabindranath Tagor) পূণ্য স্মৃতি বিজড়িত স্থান দক্ষিণডিহি (Dakshin Dihi)। ফুল, ফল আর বিচিত্র গাছ গাছালিতে ঠাসাসৌম্য-শান্তগ্রাম দক্ষিণডিহি। খুলনা (Khulna) শহর থেকে ১৯ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে ফুলতলা উপজেলা। উপজেলা সদর থেকে তিন কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে গেলে দক্ষিণডিহি গ্রাম। গ্রামের ঠিক মধ্য খানে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে রবীন্দ্র-মৃণালিনীর স্মৃতিধন্য একটি দোতলা ভবন। এটাই রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের শ্বশুর বাড়ি। এখানে এলে দেখবেন, বাংলা সাহিত্যের প্রবাদপুরুষ বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের আবক্ষ ভাস্কর্য, কবিপত্নীর আবক্ষ ভাষ্কর্য, শ্বশুর বাড়ির দ্বিতল ভবন। এছাড়া রয়েছে সবুজ-শ্যামল ঘন বাগান, পান-বরজ ও নার্সারি।

কলকাতার জোড়া সাঁকোর বিখ্যাত ঠাকুর পরিবারের সঙ্গে দক্ষিণ ডিহির সম্পর্ক নিবিড়। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মাসারদা সুন্দরী দেবী জন্ম গ্রহণ করে ছিলেন এই দক্ষিণডিহি গ্রামে। রবীন্দ্রনাথের কাকি ত্রিপুরা সুন্দরী দেবী এই গ্রামেরই মেয়ে। রবীন্দ্রনাথের স্ত্রী মৃণালিনী দেবী দক্ষিণ ডিহিরই মেয়ে। ২২ বছর বয়সে কবির বিবাহ হয় দক্ষিনডিহি গ্রামের বেনীমাধব রায় চৌধুরীর মেয়ে ভবতারিনী ওরফে মৃণালিনী দেবীর সাথে।  যৌবনে কবি কয়েক বার তাঁর মায়ের সঙ্গে দক্ষিণডিহি গ্রামের মামা বাড়িতে এসেছিলেন। ২৫শে বৈশাখ ও ২২শে শ্রাবণে এখানে নানা আয়োজনে রবীন্দ্রজয়ন্তী ও কবিপ্রয়াণ দিবস পালন করা হয়।

কিভাবে যাবেনঃ

ঢাকা থেকে সোহাগ, ঈগল, হানিফ ও গ্রিনলাইন ইত্যাদি পরিবহনে খুলনা গিয়ে সেখান থেকে বাসে ফুলতলা উপজেলায় যেতে হবে। তারপর সেখান থেকে অটোরিক্সা কিংবা স্থানীয় বাহনে রবীন্দ্রনাথের শ্বশুরবাড়ি যাওয়া যায়।

কোথায় থাকবেনঃ

রবীন্দ্রনাথের শ্বশুরবাড়ি থেকে ঘুরে এসে আপনি খুলনা শহরে থাকতে পারবেন। খুলনায় থাকার জন্য আবাসিক ও অনাবাসিক অনেক হোটেল (Hotel) রয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম ক্যাসল সালাম, হোটেল রয়েল, ওয়েস্টার্ন ইন, হোটেল মিলেনিয়াম এবং হোটেল হলিডে ইন্টারন্যাশনালে রাত যাপন করতে পারবেন। খুলনাতে থাকার জন্যে ভালো মানের কিছু হোটেলের ফোন নাম্বারঃ

১. হোটেল রয়েল ইন্টারন্যাশনালঃ ০১১৯০-৮৫৬০১৩, ০১৭১৮-৬৭৯৯০০
২. হোটেল টাইগার গার্ডেনঃ ৮৮০৪১৭২১১০৮
৩. হোটেল ক্যাসেল সালামঃ ০১৭১১-৩৯৭৬০৭, ৮৮০-৪১-৭২০১৬০, ৮৮০-৪১-৭৩০৭২৫

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।