মুম্বাই ভ্রমন

প্রশ্নোত্তরCategory: ভারতমুম্বাই ভ্রমন
Sagor asked 10 মাস ago

বাংলাদেশ থেকে ১০ দিনের ভ্রমণে মুম্বাই যেতে চাই। কোথায় কোথায় গেলে অল্প খরচে বেশি ভ্রমণ করা যাবে। জানাবেন প্লিজ

ঘুরতে যেয়ে পদচিহ্ন ছাড়া কিছু ফেলে আসবো না,
ছবি আর স্মৃতি ছাড়া কিছু নিয়ে আসবো না।।

1 Answers
আদার ব্যাপারী Staff answered 10 মাস ago

কম বাজেটে মুম্বাই ভ্রমন এর খসড়া প্ল্যান

দিন ০০ঃ ঢাকা থেকে রওনা হয়ে যান কলকাতার উদ্দেশ্যে।
দিন ০১ঃ কলকাতা থেকে রাতের যে কোন ট্রেনে রওনা হয়ে যান মুম্বাইয়ের উদ্দেশ্যে। সবচেয়ে ভাল হয় CST Mail ধরতে পারলে।
দিন ০২ঃ সারাদিন ট্রেন জার্নি। সাথে গল্প বই কিনে নিতে পারেন কলকাতার কলেজ স্ট্রিট বা যে কোন দোকান হতে, ট্রেনে পড়ার জন্য। আর গ্রুপ হলে তো কথাই নেই।
দিন ০৩ঃ ভোরবেলা বা সকাল এগারোটার মধ্যে মুম্বাই পৌঁছে ট্রাম বা বাসে করে চলে আসুন গ্রান্ট রোড। উপরে উল্লেখিত যে কোন হোটেলে অনলাইনে বুকিং করে যান। অন্যথায় একটু খোঁজ করে উঠে পড়ুন বাজেটের হোটেলে। মনে রাখবেন মুম্বাইতে হোটেলের জন্য ঝাঁকে ঝাঁকে দালাল ঘোরাফেরা করে সেই ভোরবেলা থেকেই, এরা আপনার গতিবিধি দেখেই বুঝে ফেলবে আপনি টুরিস্ট, হোটেল খোঁজ করছেন।তারপর আঠার মত লেগে থাকবে আপনার পিছু পিছু। হোটেলে চেকইন করে এদিন একটু রেস্ট নিন। দুপুরের খাবারে পর মুম্বাইয়ের পথে ঘুরে বেড়ান। গ্রান্ট রোড হতে মুম্বাইয়ের বিখ্যাত চউপত্তি আর মেরিন ড্রাইভ বেশী দূরে নয়। সন্ধ্যে পর্যন্ত সেখানে কাটিয়ে হোটেলে ফিরে আসুন।
দিন ০৪ঃ আগেরদিনই হোটেলের রিসিপশন হতে মুম্বাই দর্শন এর বাস টিকেট করে রাখুন। সকালের নাস্তা উল্লেখিত হোটেলে সেরে আসুন (এদের নেহারি, কলিজা এইসব আইটেম টেস্ট করে দেখতে পারেন)। এরপর সারাদিন মুম্বাই দর্শন করুন, তবে গেট অফ ইন্ডিয়াতে বোটে করে ভ্রমণ করবেন না এদিন, কেননা পরেরদিন এখান হতে এলিফ্যান্ট আইল্যান্ড যাবেন। তাই এই সময়টুকু এখানে ঘুরে বেড়ান, বাসের বাকি টুরিস্টরা ঘুরে আসা পর্যন্ত। সূর্যাস্ত উপভোগ করুন বিখ্যাত জুহু বীচে। রাত আটটা নাগাদ পৌঁছে যাবেন হোটেলে। একেবারে রাতের খাবার খেয়েই হোটেলে প্রবেশ করুন। এরপর একটা ঘুম দিন।
দিন ০৫ঃ সকালবেলা একটু আগে উঠে পড়ুন। হোটেল থেকে সাতটা নাগাদ বের হয়ে পড়ুন। নাস্তা শেষে বাস যোগে গেট অফ ইন্ডিয়া চলে আসুন। এখান হতে এলিফ্যান্ট আইল্যান্ড যাওয়ার টিকেট করে ফেলুন। সারাদিন এলিফ্যান্ট আইল্যান্ড ঘুরে বিকেলে মেরিন ড্রাইভে চলে আসুন। এখানে সূর্যাস্ত উপভোগ করুন। এরপর হোটেলে ফিরে ব্যাগপত্তর নিয়ে রাতের ট্রেন ধরুন কলকাতার উদ্দেশ্যে। ট্রেন অবশ্যই Howrah Mumbai Mail।
দিন ০৬ঃ সারাদিন ট্রেনে জার্নি।
দিন ০৭ঃ কলকাতা এসে পৌছবেন ভোরবেলা, চাইলে দুপুর পর্যন্ত ঘোরাঘুরি করতে পারেন। নইলে সকাল সাতটা বা আটটার বাসে বেনাপল চলে আসুন; অথবা ট্রেনে করে বনগাঁ হয়ে বেনাপল। চাইলে দুপুর পর্যন্ত কলকাতায় কাটিয়ে দুপুরের বাসে বেনাপল রওনা হয়ে যান। বিকেলের মধ্যে বর্ডার ক্রস করে রাতের গাড়িতে বেনাপল হতে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে যান।

মুম্বাই এর ঘোরার জায়গা বা দর্শনীয় স্থানগুলো

মুম্বাই ঘোরাঘুরির জন্য প্রতিদিন সকালবেলা হোটেল হতেই পেয়ে যাবেন মুম্বাই দর্শন এর প্রাইভেট/পাবলিক বাস সার্ভিস। ভাড়া ২৫০-৪৫০ রুপীর মধ্যে। সকাল দশটার মধ্যে শুরু হয়ে রাত আটটায় আপনাকে ড্রপ করবে হোটেলের কাছে।

এই সারাদিনের প্যাকেজে আপনি দেখতে পারবেনঃ Gateway of India (Taj Mahal Hotel), Prince of Wales Museum, Jehangir Art Gallery, World Trade Center, Mantralaya, Assembly Hall, Nariman Point, Oberoi Hotel, Air India Building, Wankhede Stadium, Marine Drive (Queen’s Necklace ), Girgaon Chowpatty (speed boat H2O), Jain Temple, Kamla Nehru Park, Boot House, Hanging garden, Hajrat Ali, Juhu Beach প্রভৃতি।

যে প্যাকেজেই যান না কেন আগে দেখে নেবেন কি কি স্পট কাভার করবে। এছাড়া গেটওয়ে অফ ইন্ডিয়া হতে নৌপ্যাকেজে সারাদিনের জন্য ঘুরে আসতে পারেন এলিফ্যান্ট আইল্যান্ড। এখান হতে প্রতিদিন সকাল নয়টা হতে দুপুর দুইটা পর্যন্ত প্রতি আধঘন্টা পরপর ছোট ফেরী টাইপ বোট ছেড়ে যায় এলিফ্যান্ট আইল্যান্ডের উদ্দেশ্যে, ভাড়া ১২০ রুপী। নয়টার প্রথম বোটে রওনা হলে আইল্যান্ডে পৌঁছবেন দশটা নাগাদ। সেখান থেকে এলিফ্যান্ট কেইভ যেতে আরও আধ ঘন্টা। এক ঘন্টা সেখানে কাটিয়ে বারোটার দিকে চলে আসুন ফিরতি বোট ধরার জন্য। ফেরার বোটগুলো বেলা বারোটা থেকে বিকেল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত চলাচল করে। সোমবার বন্ধ থাকে। তাই যদি মুম্বাই রবিবার এসে পৌঁছান, তবে এদিন এলিফ্যান্ট আইল্যান্ড ট্যুর করে পরদিন মুম্বাই দর্শন করুন, কারন অনেক স্থান রবিবারে বন্ধ থাকে। চাইলে আরেকদিন থেকে ঘুরে আসতে পারেন মুম্বাইয়ের বিখ্যাত এসসেল ওয়ার্ল্ড, গ্রান্ট রোড হতে বাস, ট্রেন বা ট্যাক্সি নিয়ে চলে যেতে পারেন। এসসেল ওয়ার্ল্ড এবং ওয়াটার ওয়ার্ল্ড এর কম্বাইন্ড টিকেট ১৩০০ রুপী, সব মিলিয়ে দুই হাজার রুপী বাজেট রাখতে পারেন। এই ট্যুরের জন্য।

খরচ

ঢাকা-কলকাতা-ঢাকা (১,০০০X২)= ২,০০০ টাকা।
কলকাতা-মুম্বাই-কলকাতা (৮০০ রুপী হিসেবে ১,০০০X২)= ২,০০০ টাকা।
হোটেল ভাড়া দুই রাত (৮০০ রুপী হিসেবে ১,০০০X২)= ২,০০০ টাকা।
খাবার ০৭ দিন, প্রতিদিন (২৫০ রুপী হিসেবে ৩০০X৭)= ২,১০০ টাকা।
মুম্বাই দর্শন এবং এলিফ্যান্ট আইল্যান্ড ভ্রমণ ১,৫০০ টাকা।
অন্যান্য (ইমারজেন্সি মানি সহ) ১,৪০০ টাকা।
বর্ডার স্পিডমানি এবং ট্রাভেল ট্যাক্স ১,০০০ টাকা।
সর্বমোটঃ ১২,০০০ টাকা।

প্ল্যানারঃ হাসানুর রাসেল ভাই

ঘুরতে যেয়ে পদচিহ্ন ছাড়া কিছু ফেলে আসবো না,
ছবি আর স্মৃতি ছাড়া কিছু নিয়ে আসবো না।।

Your Answer