ঢাকা-ব্যাংকক-ফুকেট-ফি ফি আইল্যান্ডস-ক্রাবি-পাতায়া-ব্যাংকক-ঢাকা ভ্রমন

যুক্ত করা হয়েছে

আমরা রিজেন্ট এয়ারের অফারের টিকিট কেটেছিলাম গত নভেম্বর মাসে ১৪৫০০ টাকা করে।

সময়ঃ ৬ দিন
গ্রুপঃ ৪ জন

১ম দিনঃ

সকাল ৯.২০ এ ঢাকা থেকে রিজেন্ট এয়ারে সুবর্নভূমি এয়ারপোর্ট এ পৌছাই স্থানীয় সময় ২ টার দিকে। এয়ারপোর্ট এর সব কাজ শেষ করে আমরা আমাদের নিজেদের কিছু প্রয়োজনে শুকুম্ভিট এরিয়ায় যাই এবং সেখান থেকে কিছু প্রয়োজনীয় কেনাকাটা করে বিকেল ৫টার মধ্যে ডংমুং এয়ারপোর্ট এ চলে যাই। আমাদের ব্যাংকক টু ফুকেট এবং ক্রাবি টু ব্যাংকক এর টিকেট আমরা আগেই কেটে রেখেছিলাম। ফুকেট এয়ারপোর্ট পৌছাতে ১ঃ১০ মিনিট লাগে। এয়ারপোর্ট থেকে আমরা একটা ট্যাক্সি ভাড়া করি ৭৫০ বাথ দিয়ে,ডেস্টিনেশন পাতং বীচ। ড্রাইভারদের সাথে দামাদামি করতে হবে। ওরা ১০০০-১২০০ বাথ চায়। পাতং বীচেই আপনি অনেক হোটেল পাবেন যদিও আমরা বুকিং.কম থেকে বুকিং দিয়ে গিয়েছিলাম। হোটেল ভাড়া ২০০০ বাথ। দুইটা ডাবল বেড রুম। রাতে আপনি ফুকেট পাতং বীচ এরিয়া ঘুরে দেখতে পারেন। ফুকেট থেকে আপনি ফুকেট যেয়েও ফিফি আইল্যান্ড এর প্যাকেজ কিনতে পারেন। আমরা অনলাইনে ফুকেটফেরী.কম থেকে ফুকেট-ফিফি-ক্রাবি টিকিট কাটি। টোটাল ২০$ ইনক্লুডিং হোটেল টু ফেরীঘাট ট্রান্সপোর্টেশন। ২.২০ মিনিট লাগবে ফি ফি আইল্যান্ড পৌছাতে।

থাইল্যান্ড ট্যুর

২য় দিনঃ

ফিফি আইল্যান্ড ঘুরতে সেখানে যেয়ে আপনাকে বোট ভাড়া করতে হবে ফিফি আইল্যান্ডস সংলগ্ন ৯টা বীচ বা দ্বীপ ঘোড়ার জন্য। আমাদের ২ ঘণ্টার বোটট্রিপ এর জন্য দরদাম করে ১৬০০ বাথ ঠিক করি। আপনি যদি বীচগুলাতে নামতে চান তাহলে আপনাকে ৪০০ বাথ/জন প্রতি গুনতে হবে। বোটট্রিপ শেষে দুপুরের খাবার শেষে ৩.০০ টার দিকে ক্রাবির ফেরীতে সোওয়ার হয়ে যান। ১.৩০ মিনিট লাগবে ক্রাবি পৌছাতে। রাতের বেলা ক্রাবির আওনাং বীচ এরিয়াতে ঘুরে পরের দিনে আইল্যান্ড ট্যুরের জন্য বুকিং দিয়ে দেন।

ক্রাবি
ক্রাবি

৩য় দিনঃ

এখান থেকে আপনি জেমস বন্ড আইল্যান্ড ঘুরে আসতে পারেন। প্লেস আর ঘোরার জায়গা ভেদে আপনার জনপ্রতি ৭০০ থেকে ১৫০০ বাথ নিবে। ক্রাবি ট্যুর শেষে আমরা ওদিন সন্ধ্যার ফ্লাইটে ব্যাংকক ব্যাক করি। রাতে ব্যাংকক শহর ঘুরতে পারেন।

৪র্থ দিনঃ

এদিন আপনার লক্ষ্য থাকবে শপিং এর সাথে ব্যংকক এ কিছু প্লেস ঘোরা। যেমন মাদাম ট্যুসো জাদুঘর, সিয়াম ওশান ওয়ার্ল্ড, সিয়াম প্যরাগন মার্কেট, এমবিকে। সস্তায় শপিং করতে চাইকে চলে যান প্রাতুনাম ইন্দ্রা স্কয়ার।

৫ম দিনঃ

এদিন সকাল টাও আপনি চাইলে টুকটাক শপিং করে দুপুরের মধ্যে চলে যান বাংকক বিটিয়াই স্টেশন। উদ্দেশ্য পাতায়া। ১৩০ বাথ বাস ভাড়া নিবে জনপ্রতি। পাতায়া পৌছাতে ২.২০ মিনিট লাগবে। পাতায়া যেয়ে হোটেল বুকিং দিয়ে সিটি ট্যুরে বেরিয়ে যান। নাইট লাইফ ইঞ্জয় করতে পারেন।

৬ষ্ঠ দিনঃ

পরের দিন সকালে নাশতা করে শপিংও করতে পারেন আবার ঘোরাঘুরি ও করতে পারেন। যেহেতু ২.২০ স্থানীয় সময় সুবর্নভুমি এয়ারপোর্ট থেকে ফ্লাইট, সেহেতু আপনাকে ১২.৩০ এর মধ্য এয়ারপোর্ট পৌছাতে হবে। পাতায়া থেকে এয়ারপোর্ট আপনার মোটামুটি ১.৪৫ মিনিট লাগবে সর্বোচ্চ। এভাবেই আপনি ছয়দিনে মোটামুটি এই ট্যুর করতে পারবেন।

এবার খরচের হিসেবে আসিঃ

প্লেন ফেয়ার ঢাকা-বাংকক-ঢাকা ১৪৫০০( রিজেন্ট এয়ার অফার প্রাইস)।
ব্যাংকক-ফুকেট (এয়ার এশিয়া): ৩৪$= ২৭৮৮ টাকা
ক্রাবি-বাংকক (ব্যাংকক এয়ার): ৪৬$= ৩৭৭২ টাকা
ফুকেট-ফিফি-ক্রাবি ফেরীঃ ২৩$=১৮৮৬ টাকা
হোটেল ভাড়া প্লাস অন্যান্য ট্যাক্সি ভাড়া প্লাস খাবারঃ সব মিলিয়ে আনুমানিক ১৮০০০ জন প্রতি।
সর্বমোট খরচঃ জন প্রতি ৪০৯৪৬ টাকা

বিঃদ্রঃ ঘুরতে যেয়ে যতটুকু সম্ভব সময় কাজে লাগানোর চেষ্টা করবেন। বিমান টিকেট চেষ্টা করবেন ২-৩ মাস আগে কাটতে। উল্লেখিত টিকিট প্রাইস সবসময় আপডাউন করে।

সকল ছবি কপিরাইট স্বত্ত্ব লেখকের।