চীন ভ্রমণে কিছু দরকারি টিপস

যুক্ত করা হয়েছে

প্রথমবারের মত চীন ভ্রমণে যাচ্ছেন, তাই অনাকাঙ্খিত ঝামেলা এড়াতে দরকার কিছু পূর্ব প্রস্তুতি। নিচের পয়েন্ট গুলোতে একবার চোখ বুলালেই বুঝবেন কেন দরকার আপনার এই স্পেশাল প্রুস্তুতি। চীনে ৯০% জায়গাতে চাইনীজ ভাষা ব্যবহার হয় এবং শ খানেক লোকের মাঝে হাতে গোনা হয়ত ২-৪ জনকে পাবেন যারা আপনার ইংরেজি বুঝবে কিংবা আপনাকে বোঝাতে পারবে। আর একটা কথা, ওরা ইংরেজি শব্দকে সর্বোচ্চ পরিত্যাগ করার চেষ্টায় রত, তাই আমরা যেমন চেয়ার, টেবিল ব্যবহার করি ওদেরকে সেটাও আপনি বোঝাতে পারবেন না। ওরা দেশের নামকেও ট্রানস্লেট করে নেয় 😉

  • বাইদু (Baidu) এর মতো ম্যাপ অ্যাপলিকেশন আগে থেকেই মোবাইলে ডাউনলোড করে রাখুন৷ ইংরেজি ভার্সান সিলেক্ট করতে ভুলবেন না৷
  • জিমেল ছাড়া অন্য ইমেল অ্যাকাউন্ট না থাকলে তৈরি করে নিন৷ হটমেইল বা ইহায়ু৷ ফ্লাইট টিকিট, বুকিং এর মতো নথি ফরোয়ার্ড করে রাখুন আগেই৷
  • বেশিরভাগ রেল স্টেশন বা ফেরিঘাটে বিমানবন্দরের মতো সিকিউরিটি চেক হয়৷ ভিসা দেখাতে হতে পারে৷ পাসপোর্ট সঙ্গে থাকলে নিশ্চিন্ত৷
  • যদি আপনাকে হোটেলে পৌঁছে দেবার কেউ না থাকে, তবে আপনি সবরকম ঠিকানা চাইনীজ ভাষায় প্রিন্ট করে নিয়ে আসবেন। ইংরেজি কেউ বুঝে না, চীনা ঠিকানা ছাড়া আপনার হোটেল পৌঁছতে অনেক কঠিন হয়ে যাবে।
  • সাংহাইতে প্রায় সারা বছরই বৃষ্টি৷ ফ্লাইট ক্যানসেল বা দেরি হওয়ার আশঙ্কা আঠারো আনা৷ সুযোগ থাকলে সাংহাই বিমান যোগাযোগ বাদ দিয়ে প্ল্যান করুন৷
  • পরিচ্ছন্নতা এখন চিনাদের রক্তে৷ যত্রতত্র সিগারেটের টুকরো (বা নোংরা) ফেললে জরিমানা হতে পারে৷ নিয়ম না জানাটা কোনও অজুহাত বলে গন্য হবে না৷
  • মেনু কার্ড বা ডিশ দেখে খাবারের উপাদান বোঝার সুযোগ নেই৷ যেটা পাস্তা ভাবছেন, সেটা হয়তো সামুদ্রিক আগাছা বা ব্যাঙের ঠ্যাং৷ প্রশ্ন করুন, জেনে নিন৷
  • চিনাদের এক ইউয়ান আমাদের সাড়ে ন’টাকার মতো৷ ইন্টারন্যাশনাল ডেবিট কার্ড থাকলে ‘ব্যাঙ্ক অফ চায়নার’ মতো বড় ব্যাঙ্কের এটিএম থেকে টাকা তোলা যাবে৷
  • ভাষা বড় সমস্যা৷ অধৈর্য হলে কার্যসিদ্ধি হবে না৷ স্থানীয় মানুষ আপনাকে সাহায্য করার আপ্রাণ চেষ্টা করবেন৷ আপনাকে শুধু একটু চোখকান খোলা রাখতে হবে৷
  • ইউরোপের মতো চিনেও যান-বাহন ‘লেফট হ্যান্ড ড্রাইভ’৷ বাসে-ট্রামে উঠতে হবে ডান দিক দিয়ে৷ খেয়াল রেখে, সেই অনুযায়ী বাস স্টপে দাঁড়ান৷
  • আপনি ছোট-খাট সমস্যার জন্যে ঔষধপত্র নিতে ভুলবেন না। স্থানীয় খাদ্য আপনার সহ্য নাও হতে পারে।
  • চীনের মানুষ ইংরেজি জানেই না বললে ভুল হবে না। “How are you?” এর মানে বোঝে না এমন মানুষও কম নয়। রাস্তা ঘাট, দোকান, সাইনবোর্ড সবত্র শুধুই চাইনিজ ভাষা চোখে পড়বে। ইংরেজি ১% বলতে পারেন।
  • চীনের ব্যবসা এবং সংস্কৃতির উপর নির্দেশিকা এবং গাইড রাখতে পারেন
  • চীনে ব্যবসায়িক ভ্রমনের সময় যোগ্যতাসম্পন্ন চীনা দোভাষী সাথে রাখুন। পরিচিত কেউ না থাকলে দোভাষী ভাড়া করুন।
  • ফেসবুক, গুগল কিংবা ইয়াহু সেখানে কাজ করবে না। তাই আপনি মোবাইল বা কম্পিউটারে VPN সফটওয়্যার ইন্সটল করে যাবেন।
  • চীনা বিমান গুলোতে চেকইনে জনপ্রতি একটির বেশী বড় ল্যাগ্যাজ বহন করলে আপনাকে মাসুল দিতে হবে ৫০০০/= টাকা করে প্রতিবারে।
  • চীনা নববর্ষের সময় দুই সপ্তাহ সবকিছু বন্ধ থাকে। জানুয়ারীর মাঝামাঝি থেকে ফেব্রুয়ারীর মাঝামাঝি সময়টায় তাদের নববর্ষ পড়ে।
  • মে মাসের প্রথম সপ্তাহে (শ্রমিক দিবসের এর ছুটি)
  • অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে (তাদের জাতীয় দিবসের ছুটি)