কিভাবে কম খরচে শিমলা-মানালি ঘুরে আসবেন?

যুক্ত করা হয়েছে

এখন ভারতীয় ভিসার ব্যাপার আগের জটিল সমীকরণের চেয়ে অনেকটা সহজ। ivacbd.com ওয়েবসাইটে সব পাবেন। বেনাপোল, গেদে এবং বাই এয়ার ফ্রি পোর্ট। মানে এইগুলা বাদে অন্য যেকোন পোর্ট দিয়ে ভিসা থাকলে এই পোর্টগুলো দিয়ে ঢুকা/বের হওয়া যাবে। আমি যেমন চেংরাবান্ধা দিয়েছিলাম।কিন্তু যাওয়া -আসা করছি বেনাপোল দিয়ে। ভিসা ফি ৬০০ টাকা।

ঢাকা-বেনাপোল ভাড়া সম্ভবত ৫০০ টাকা, আমি চট্রগ্রাম-বেনাপোল গিয়েছিলাম নন এসি ৮৫০ টাকা।

সকালে লাইন কম থাকে। ট্রাভেল ট্যাক্স ৫০০ টাকা নিজে প্রদান করে নিজের ফর্ম নিজে ফিলাপ করে বর্ডার পার হয়ে যায় ৩০ মিনিট এর মধ্যে। ২০ রুপি অটো ভাড়া দিয়ে বনগাঁ রেল স্টেশন। আবার শেয়ালদাহ পর্যন্ত ট্রেন এর টিকেট ২০ রুপি। স্টেশনেই সকালের নাস্তা করে নিবেন। দুপুর নাগাদ পৌঁছে যাবেন দমদম স্টেশনে। দমদম নেমে মেট্রোতে করে চলে যাবেন এসপ্ল্যানেড। এইখান থাকে হাটা দুরত্বেই মার্কুইস স্ট্রীট, সদর স্ট্রীট, কলিন স্ট্রীট যেইখানে বাংলাদেশিরা থাকে। দরদাম করে কোন হোটেলে উঠে যাবেন। তবে আমি ৩০০ রুপিতে ছিলাম শেয়ালদাহ স্টেশন এর পাশের এক হোটেলে। যেহেতু একা ব্যাগপত্র একটু সাবধানে রাখবেন।

বিকালে ফেয়ারলি প্লেস গিয়ে ফরেইন কোটায় টিকেট কেটে আসবেন। কলকা মেইল/পূর্বা এক্সপ্রেস এইগুলোর ভাড়া কম কিন্তু সময় লাগে বেশি। আবার রাজধানী /দুরন্ত এর ভাড়া বেশি সময় লাগে কম। আমি পূর্বায় দিল্লী গিয়েছিলাম ২৪ ঘন্টায় নন এসি স্লিপার ৯০০ রুপিতে।

দিল্লী নেমে দিল্লী মেট্রো স্টেশনে গিয়ে কাশ্মীরি গেট চলে যাবেন ১০ রুপি ভাড়ায়। কাশ্মীরি গেট/আইএসবিটি গিয়ে শিমলার টিকেট কাটবেন নন এসি ৪০০রুপি দিয়ে। এসি ভলভো বাস ও পাওয়া যায়। শিমলায় পুরাতন বাস স্ট্যান্ড এর আশেপাশে কম দামে ডরমিটরি/ গেস্ট হাউজ পাবেন। আমি ছিলাম ৩০০ রুপিতে।

এরপর পাব্লিক বাসে করে আশেপাশে ঘুরে দেখবেন।

সিমলা থেকে মানালি ৬ ঘন্টার পথ। মাঝখানে কুল্লু পড়বে। মানালি থেকে ৫৪ কিমি দূরে এই কুল্লুতে এয়ারপোর্ট রয়েছে।

নিউ মানালিতে খরচ একটু বেশি। ওল্ড মানালি একটু কম। আমি দুইজায়গায়ই ছিলাম। তবে একটা জায়গা আছে যেইখানে প্রতিরুম ৩০ রুপি দিয়ে ছিলাম মাত্র।

সোলাং ভ্যালি, স্পিতি, কিলং সববজায়গায় যাওয়ার পাবলিক বাস আছে। ভাড়া কম হলেও একটু কষ্ট ঝাঁকি খাওয়া লাগে।

এইভাবে ১০ থেকে ১৫ হাজারের মধ্যে ঘুরে আসা সম্ভব শিমলা-মানালি থেকে।