মানালি-লাদাখ-কাশ্মীর-আগ্রা ট্যুরের আদ্যোপান্ত

যুক্ত করা হয়েছে

আমার লাদাখ-কাশ্মীর ট্যুর এর একটা সংক্ষিপ্ত বর্ননা দিচ্ছি। আমরা গিয়েছিলাম ৪ জন। গত মাসে।১৫ দিন। বাই রোড/ট্রেন। অনেকে হয়ত আমদের থেকে ভাল প্ল্যান এ ঘুরে এসেছেন। আমি এখানে আমদের প্ল্যানটা শেয়ার করছি। জায়গার নাম উচ্চারনে ভুল ভাল লিখে থাকলে মাফ করবেন।

১ম দিনঃ

ঢাকা থেকে কলকাতা। রাতে বাসে উঠলে পরেরদিন দুপরের মধ্য কলকাতা। সেখান থেকে সব টাকা ভাঙিয়ে নিবেন। পরে সুযোগ হবে কিনা জানেন না। বিকেলে ট্রেনে করে দিল্লির উদ্যশে রওনা। আমরা গিয়েছিলাম HWH-ANVT express এ। ভাড়া Sleeper Class -600। স্টেশনে টিকেট পাবার চান্স খুব ই কম। ওখানে এজেন্সি আছে, টিকেট পাবেন ওখানে একটু বেশি দিয়ে। অথবা দেশও টিকেট এজেন্সি পাবেন। ৩০০-৪০০ টাকা দিয়ে কেটে দিবে ট্রেন টিকেট। ২৪ ঘন্টার মত লাগবে। Rajhdhani Express এ আরো কম সময় লাগবে দিল্লী পৌছতে। তবে ভাড়া বেশি, খাবার দেয় এইটাতে।

২য় দিনঃ

সন্ধায় দিল্লী পৌছবেন। স্টেশনে নেমে সোজা কাশ্মীরি গেইট বাস স্ট্যান্ড চলে যাবেন। স্টেশনে দালাল এ ভরা। OLA/Uber ইন্সটল করে নিয়েন। এগুলা ইউজ করবেন। ওলাতে ২৫০+ বিল আসবে। রাতে মানালি এর উদ্দ্যশে অনেক বাস ছেড়ে যায় কাশ্মীরি গেইট থেকে। এসি বাস ১২০০-১৩০০ এর মত। নন এসি ও আছে কমে। বাট দুইদিন টানা জার্নির পর নন এসি তে উঠতে মন চাইবে না হয়ত।

৩য় দিনঃ

মানালি পৌঁছেতে দুপুর। সেদিন হোটেল এ চেক ইন করে মানালি টাউন এর আশেপাশে ঘুরাঘুরি সেরে নিবেন। ১৩০০ টাকায় থেকেছিলাম ৪ জন।

৪র্থ দিনঃ

সকাল ৪ঃ৩০ – ১০ টা পর্যন্ত কেলং এর উদ্যশে বাস ছারে। যত আগের বাসে যাবেন তত ভাল। কারন কেলং এ নেমেই আপনাকে পরের দিনের লেহ এর বাসের টিকেট এর সিরিয়ালে দাড়াতে হবে। একটি মাত্র বাস। টিকেট শেষ হয়ে গেলে কেলং এ অতিরিক্ত দিন থাকা লাগতে পারে। টিকেট ছাড়ে ৫ঃ৩০ থেকে। আর হ্যা, পথে বাস ড্রাইভার রোহতাং পাস এ ৫-১০ মিনিট এর ব্রেক দিবে। ভাড়া ১৭৩ রুপি। রাতে কেলং এ Khandroling Guest House এ ১২০০ রুপিতে ৪ জন থেকেছিলাম।

৫ম দিনঃ

সকাল ৫ টায় বাস। লেহ পৌঁছতে সন্ধ্যা। ভাড়া কেলং-লেহ ৫৪০ রুপি। রাতে হোটেলে চেক ইন। (লাদাখ রোড ট্রিপের আসল মজা এখানে শুরু)। বাস মাঝে tanglang la pass এ থামাবে বললে। World 2nd highest motorable road.

৬ষ্ঠ দিনঃ

সকালে টক্সি/গাড়ি খুজতে বের হয়ে যাবেন। লাদাখ এ বেশ কিছু স্পট আছে। কোথায় কোথায় যাবেন তা আগে থেকেই ঠিক করে নিবেন। আমরা লেহ টাউনের সাইট সিন বাদে তুরতুক+নুব্রা+প্যাংগং গিয়েছিলাম। আমরা সাইদ (ভাই) হোসেন নামে একজন ড্রাইভার পেয়েছিলাম। উনি যথেষ্ট হেল্পফুল আর মজার মানুষ। বলা যায় ওনার কারনে আমাদের ট্যুর এর মজা বেড়ে গিয়েছিল দিগুন। সব পার্মিট উনি ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন। তুরতুক (Turtuk) +প্যাংগং সহ আরো ৪-৫ টা প্লেস এর পারমিট খরচ ৬০০ রুপি। ৬ষ্ঠ দিনে লেহ টাউন সাইট সিন করে নিবন। রাতে থেকেছিলাম “Chamtse Guest House”-Upper Karzu। ভাড়া ১০০০ ৪ জনের।

৭ম দিনঃ

সকাল সকাল তুরতুকের উদ্যশে রওনা। পথে Khardung La, highest motorable road in the world। পথে বেশি সময় নষ্ট না করলে বিকাল ৪ টার মধ্য তুরতুক। পাহাড়ে দেরিতে রাত হয়। সুতরাং ছোট একটি গ্রাম তুরতুক বিকেলেই ঘুড়া শেষ হয়ে যাবে হয়ত। থেকেছিলাম “Isu Home Stay” আলি ভাই ওনার নাম। ১ জন ৫০০ রুপি সাথে ডিনার+সকালের নাস্তা। সিজন ভেদে কম-বেশি হতে পারে। তবে এর কমে মনে হয় পাবেন না।

৮ম দিনঃ

সকাল ১০-১১ টার দিকে নুব্রা যাবেন সেখানে টেম্পল আছে একটা sand dune আছে। উটে চড়তে পারবেন। রাতে থাকতে হবে নুব্রা ভ্যালী তেই। আমরা থেকেছিলাম Hunder“Shyok Home Stay” সর্বোচ্চ রেঞ্জ ৭০০ একজন, দুবেলা খাবার সহ।

৯ম দিনঃ

সকাল সকাল প্যাংগং এর উদ্যশে যাত্রা। লেক দেখে সন্ধ্যা ৬ টার মধ্য লেহ তে থাকতে পারবেন। মাঝপথে Chang La, World 3rd highest motorable road পাবেন। রাতে আগের সেই “Chamtse Guest House” থেকেছি। (৬ষ্ঠ দিনের সাইট সিন থেকে ৯ম দিন লেহ পর্যন্ত, ৪ দিনে ভাড়া নিয়েছিল ২০০০০ যেটা সরকারি নির্ধারিত ভাড়া থেকে কম। সিজন ভেদে ভাড়া এদিক সেদিক হতে পারে। সাইদ ভাই – +91 94 69 049038)

১০ম দিনঃ

এবার শ্রীনগর যাবেন। বাস আছে এখানেও তবে এই রোডে বাস থেকে ৭ সিটারে এর গাড়ি এ ভাল। কারন গাড়ি আপনাকে ১২ ঘণ্টায় শ্রীনগর পৌঁছে দিবে। রাস্তা ভাল। বাস এ গেলে Kargil এ থাকতে হবে। থাকা+খাওয়া সহ ভাড়া গাড়ির মত পরে যায়। সুতরাং গাড়ি নিলে টাকা+দিন টাও সেভ হবে। সকাল ৬ তায় রওনা দিলে সন্ধ্যা ৬ টার আগেউ শ্রীনগর। রাতেই Pahalgam যেতে পারবেন। (লেহ-শ্রিনগর ভাড়া নিয়েছিল ১০৫০০। সিজন অনুযায়ী কম বেশি হতে পারে)

১১ তম দিনঃ

Pahalgam ঘুরে বিকেল শ্রীনগর ব্যক। ডাল লেক ঘুরে রাতে জম্মু এর জন্য বাস নিবেন। শেয়ার ট্যক্সি আছে ভাড়া ৫০০ রুপি। ৭ সিটার গাড়ি ভাড়া করতে পারবেন ৪-৫ হাজার পরবে হয়ত। রাতে গাড়িতেই থাতে হবে। অথবা সেদিন Pahalgam থেকে পরের দিন ভোরে ডিরেক্ট জম্মু যেতে পারেন।

১২ তম দিনঃ

সকালে জম্মু। ঘুরাঘুরি করে রাতে দিল্লির উদ্যশে বাস ধরবেন। চাইলে না ঘুরে সকালেই দিল্লির বাস ধরতে পারেন। তবে সকালে সরকারি বাস পাবেন সুধু, ভাড়া ৬৫০ নন এসি। প্রাইভেট বাস শুধু রাতে চলে। এসি বাস ভাড়া ১০০০। সরকারি গাড়িতে দিল্লী রাতে পৌছাবেন। হোটেল এ থাকতে পারেন। অথবা আগ্রার বাস পাবেন। আর দিল্লী থেকে পরের দিন ট্রেনেও কলকাতা আসতে পারেন।

১৩ তম দিনঃ

সকালে আগ্রা পৌছে হোটেলে চেক ইন। বের হয়ে তাজমহল (Taj Mahal) +আগ্রা ফোর্ট (Agra Fort)। পরের দিন ভোরে ট্রেন আছে কলকাতার Jodhpur HWH আগ্রা ফোর্ট স্টেশন থেকে ( প্রতিদিন চলে)। ভড়া ওই ৬০০।

১৪ তম দিনঃ

ভোরে ট্রেনে উঠবেন, ৬ টার দিকে। ট্রেনে সারাদিন। রাত। ট্রেনে খাবার ভাল ৫০ টাকায় নাস্তা, আর ১২০ টাকায় ভারি খাবার হয়ে যাবে।

১৫ তম দিনঃ

কলকাতা পৌঁছবেন ভোরে। এরপর আপনার মত আসবেন।

এই ছিল আমাদের প্ল্যান। এবার সময় এদিক সেদিক করে, প্লেস প্লাস/মাইনাস করে ঘুরে আসুন। যাদের সময় খুব কম বা কম জার্নি করতে চান তারা এয়ারে ট্রাভেল করুন, Kullu-Manali তে এয়ারপোর্ট আছে। আবার চাইলে সরাসরি Leh তে বাই এয়ারে চলে যেতে পারবেন।

নোটঃ

  • লেহ তে পাস্পোর্ট+ভিসার ফটোকপি রাখবেন। লাগবে কয়েক জায়গায়।
  • প্রচুর পানি এবং শুকনা খাবার রাখবেন সাথে। অনেক উচ্চতায় শ্বাসকষ্ট হতে পারে। এক ধরনের ট্যাবলেট পাওয়া যায়। সাথে রাখতে পারেন। ২-১ দিন পার হলে অভ্যাস হয়ে যাবে।
  • কাশ্মীরে সধারন লোকজন এর সাথে বেশি কথা বলবেন না। অনেক আজেবাজে মানুষ আছে। বাংলাদেশী শুনলে খারাপ কথা বলতে পারে অনেকে। আমদের ঝগড়া হয়ে গিয়েছিল একজনের সাথে।
  • মোটামুটি সব জায়গাতেই বিদ্যুৎ পাবেন।
  • এটা পুরোটা কভার করতে ৩৫০০০ লেগে যাবে। ৭ জন হলে ৩২/৩৩ এ হয়ে যাবে।