ড্রীম হলিডে পার্ক

Ratings
রেটিংস 0 (0 রিভিউ)

হাতে অল্প সময় নিয়ে পরিবারের সবাইকে নিয়ে অল্প খরচে অবকাশ যাপন করে আসতে পারেন রাজধানী ঢাকার কাছেই নরসিংদী জেলায় ৩৭ একর জায়গার উপর গড়ে উঠা বিশ্বমানের থিম পার্ক ড্রিম হলিডে পার্ক থেকে। নরসিংদী সদর উপজেলার পাঁচদোনা চৈতাব এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের পাশে এই পার্কটি অবস্থিত। ছোট-বড় সবার জন্যই রয়েছে আলাদা সব রাইড। ঢাকা থেকে মাত্র ঘণ্টা খানেকের দূরত্বে বলে ইতিমধ্যেই এ পার্কটি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

৬০ একর জমির ওপর নির্মিত এ পার্কে রয়েছে নাগেট ক্যাসেল, এয়ার বাইসাইকেল, অস্ট্রেলিয়ার বিখ্যাত ইমু পাখি, মায়াবি স্পট, কৃত্রিম অভয়ারণ্য, ডুপ্লেক্স কটেজ, পার্কে শিশু-কিশোরদের জন্য একাধিক রাইডস, সুবিশাল লেক, হংসরাজ প্যাডেল ও জেট ফাইটার বোট, মনোমুগ্ধকর প্রাকৃতিক পরিবেশবেষ্টিত নয়নাভিরাম ক্যানেল, রকিং হর্স, ক্লোজসার্কিট ক্যামেরা ও সরকার প্রদত্ত নিরাপত্তা কর্মীর তত্ত্বাবধানে সুশৃঙ্খল ও নিরাপদ পরিবেশ। রয়েছে বিশাল গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গা, নিজস্ব কটেজ ও সুপ্রশস্ত বাংলো।

ড্রিম হলিডে পার্কে পিকনিক আয়োজন করতে চাইলে

এই পার্কে মধুরিমা ও মায়াবী নামের দুটি পিকনিক স্পটও আছে। ছুটির দিনে পিকনিকের জন্য ৩০০ জনের বেশি হলে ভাড়া গুনতে হবে ৮০ হাজার টাকা। ৫০০ জনের বেশি হলে ভাড়া দিতে হবে এক লাখ ১০ হাজার টাকা। তবে কার্য দিবসে ভাড়া কিছুটা কম। অর্থাৎ ৩০০ জনের বেশি হলে ভাড়া দিতে হবে ৭৫ হাজার টাকা। আর ৫০০ জনের বেশি হলে ভাড়া দিতে হবে ৯০ হাজার টাকা। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ২ রুম সংবলিত একটি বাংলোর ব্যবস্থা থাকছে পিকনিকের জন্য। এর পাশাপাশি দোতলা বাংলোর ব্যবস্থা রয়েছে।

খাওয়ার ব্যবস্থাঃ

খাবারের মধ্যে ড্রিম হলিডে পার্ক (Dream Holiday Park) এ রয়েছে থাই, ইন্ডিয়ান ও চাইনিজ খাবার। রয়েছে আইসক্রিম পার্লার, কফি হাউস। পাশাপাশি রয়েছে নারায়ণগঞ্জের বিখ্যাত ‘জামদানি হাউস’। কম দামে পাওয়া যায় মেয়েদের থ্রি-পিস, বেড শিট ও অন্যান্য জিনিসপত্র।

প্রবেশ মূল্যঃ

জনপ্রতি ২০০ টাকা টিকেট। ওয়াটার ওয়ার্ল্ডের প্রবেশ টিকেট ৩৫০ টাকা। বিভিন্ন রাইড ৫০/১০০ টাকা করে।

খোলা-বন্ধের সময়সূচিঃ

প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮ টা পর্যন্ত খোলা থাকে। তবে সন্ধ্যা ৬ টা থেকে ৬ টা ৩০ মি. এর পর টিকিট বিক্রি বন্ধ হয়ে যায়।

কীভাবে যাবেনঃ

রাজধানী ঢাকার গুলিস্থান, কমলাপুর, মহাখালী ও সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ড থেকে বাসে যাওয়া যায়। ৩০ মিনিট পরপর বাস পাবেন। গুলিস্তান থেকে মেঘালয় লাক্সারি নামক বাস নরসিংদীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। এই বাসে যেতে ভাড়া পরবে ৮০/- টাকা। এছাড়া মহাখালি থেকে নরসিংদীর উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বাসগুলোর মধ্যে রয়েছেঃ পিপিএল ট্রান্সপোর্ট, বিআরটিসি এসি বাস, বাদশা, চলনবিল ইত্যাদি। এছাড়া টঙ্গী-পুবাইল হয়ে যায় এমন বাসে উঠলে আপনাকে পাঁচদোনায় নামতে হবে এবং সেখান থেকে প্রায় ১০০/- টাকা ভাড়ায় সিএনজি অটোরিকশায় করে পার্কে পৌছাতে পারবেন।

আন্তঃনগর এগারোসিন্দুর ও মহানগর গোধূলী ট্রেনেও যেতে পারেন। এ ছাড়া ঢাকা-চট্টগ্রামের যেকোনো লোকাল ট্রেনে যাওয়া যেতে পারে। আন্তঃনগর ট্রেনে গেলে নরসিংদী স্টেশনে নেমে সেখান থেকে বাস অথবা সিএনজি চালিত অটোরিকশায় যেতে হবে। আর লোকাল ট্রেনে গেলে নরসিংদী স্টেশন ছাড়া ঘোড়াশাল স্টেশনেও নামতে পারেন। সেখান থেকে বাসে যেতে হবে।

এ ছাড়া ঢাকা-সিলেট বিভাগের যে কোনো বাসে উঠলেই এ পার্কে পৌঁছানো যাবে। কিংবা কাঁচপুর অথবা টঙ্গী থেকে কালীগঞ্জ, ঘোড়াশাল হয়ে যাওয়া যাবে অনায়াসে। এক থেকে সর্বোচ্চ দেড় ঘণ্টার যাত্রাপথ।

কোথায় থাকবেনঃ

নরসিংদীতে থাকার জন্য বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হোটেল, গেস্ট হাউজের রয়েছে।

সরকারি ব্যবস্থাপনায় আছেঃ

নরসিংদী সার্কিট হাউজ – ০২৯৪৬২০৮৩, ০১৭৩৫৮৪০২৯৪
জেলা পরিষদ পোস্টাল বাংলো, পোস্টাল বাংলো সড়ক, নরসিংদী – ০২৯৪৬৩৭৬৫, ০১৭১২-৫২১২৭৪
ডাক বাংলো, সড়ক ও জনপথ বিভাগ, নরসিংদী – ০২৯৪৬৩১৮১
রেস্ট হাউজ, সিভিল সার্জনের কার্যালয়, নরসিংদী – ০২৯৪৬২২৬০
রেস্ট হাউজ, এলজিইডি কার্যালয়, নরসিংদী – ০২৯৪৬২২৬০
ইউএমসি জুট মিলস, কাউরিয়াপাড়া, নরসিংদী – ০২৯৪৬৬৫১

বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় আছেঃ

হোটেল নিরালা (আবাসিক), লাইব্রেরি পট্টি, নরসিংদী মার্কেট, নরসিংদী – ০২৯৪৬৩৩৯৩, ০১৭১১১৯৬৬৯৯
হোটেল আল আরাফাত (আবাসিক), ২১৫/১, সিএন দাবি রোড, বাসস্টেশন, নরসিংদী – ০২৯৪৬৩৩৯৩, ০১৭১২১৩০১৩৯
হোটেল মমতাজ, পাতিলবাড়ি সড়ক, নরসিংদী – ০১৭১১৯৫২১২০
হোটেল আজিজ (আবাসিক), পাতিলবাড়ি সড়ক, নরসিংদী – ০১৭১২০৭০২৩১
হোটেল রিয়াজ (আবাসিক), পাতিলবাড়ি সড়ক, নরসিংদী – ০২৯৪৬৫১৬, ০১৭১২-৬০৯০৪৫
হোটেল তানিম (আবাসিক), পাতিলবাড়ি সড়ক, নরসিংদী – ৯৪৬৩৯৮২, ০১৭১৮-৯১৬১৪৩
হোটেল আল মামুন (আবাসিক), বাজির মোড়, নরসিংদী – ০১৭১১৩৪১৯৪০

যোগাযোগ ঃ
ফোন: ৯৫৬৪০৪৬, ৯৫৭০১৪০-৪১, ৭৬৩০২২৫
মোবাইল ০১৭১২-১৪৫৮৪৯, ০১৭২১-৪৯০৪২০

View Direction

আপনার রিভিউ দিন

* বাধ্যতামূলক ভাবে পূরণ করতে হবে।

Sending