রাবাংলা, সিকিম, ভারত

রাবাংলা

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে সাত হাজার ফুট উঁচুতে বসে চায়ে চুমুক দিতে দিতে বরফঢাকা কাঞ্চনজঙ্ঘা দর্শন৷ স্বপ্নের মতো শোনালেও রাবাংলায় (Ravangla) পাড়ি দিলেই এ দৃশ্য বাস্তবে রূপান্তরিত হবে৷ বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্যের ঐতিহ্যকে সযত্নে বহন করে নিয়ে চলেছে সিকিমের রাবাংলা৷ সিকিমের সবকটি শহরের মধ্যে পর্যটকদের সবচেয়ে প্রিয় শহর এই রাবাংলা৷ শহরের ভিড়-ভাট্টা শব্দদূষণ থেকে … বিস্তারিত

চারখোল, দার্জিলিং, ভারত

চারখোল

নিছক ঘুরতে যাওয়া নয়৷ প্রকৃতির কোলে এক অনন্য শান্তির মাঝে কয়েকটা দিন কাটানো৷ নিঝুম রাতে শীতের পরশে কালো আকাশে জ্বলজ্বল করতে থাকা তারামণ্ডলকে নতুন করে চেনা৷ ভূপৃষ্ঠ থেকে ৫,০০০ হাজার ফুট উপরে শান্তির এই আশ্রয় – চারখোল গ্রাম৷ চারখোলের (Charkhol Village) সবচেয়ে … বিস্তারিত

জোংগু, সিকিম, ভারত

জোংগু

সিকিমের রাজধানী গ্যাংটক থেকে ৭০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত জোংগু (Dzongu) নামের ল্যাপচা অধ্যুষিত একটি গ্রাম যেখানে আজও বজায় রয়েছে লেপচা-সংস্কৃতির মূল নির্যাস। যাঁরা আসল সিকিমকে চিনতে চান, তাঁরাই খুঁজে পেতে কড়া নাড়েন জোংগুর লেপচা-বাড়ির দরজায়। নিজের মতো করে খুঁজে নেন কুমারী প্রকৃতিকে। সঙ্গে আপসে এসে ধরা দেয় সিকিমের … বিস্তারিত

সিকিপ, সিকিম, ভারত

সিকিপ

মানুষ যখন নির্জনতার শান্তি খোঁজে ঠিক তখনই ব্যস্ত শহরকে পিছনে ফেলে ছোটে পাহাড়ের নেশায়৷ আর সেই চাহিদা পূরণের আদর্শ ঠিকানা সিকিপ যা শিলিগুড়ি থেকে ১৩২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত৷ সিকিমের দক্ষিণে এই ছোট্ট পাহাড়ি গ্রাম আপনার অশান্ত মনকে দেবে ক্ষণিকের শান্তির ঠাঁই৷ গ্রামের পাশেই একেবেঁকে চলেছে খরস্রোতা রংগিত নদী৷ রয়েছে ‘রিভার রাফ্টিং’ এর ব্যবস্থা৷ অলস … বিস্তারিত

সাজং

সাজং

সাজং (Sajong) – হিমালয়ের কোলে যেখানে অনন্য রূপে সেজে উঠেছে প্রকৃতি৷ প্রকৃতির এমনই এক সৌন্দর্যের সাক্ষী সাজং৷ গ্যাংটক থেকে মাত্র ২৪ কিলোমিটার দূরে পূর্ব সিকিমে অবস্থিত ছোট্ট এই গ্রাম ধীরে ধীরে জায়গা করে নিয়েছে পর্যটকদের মাস্ট গো তালিকায়৷ নিজেদের কৃষিকাজ নিয়েই ব্যস্ত থাকে ছোট্ট গ্রামখানি৷ পাহাড়ের ধাপে ধাপে ফলায় ধান৷ গ্রামের চারপাশে সুন্দর … বিস্তারিত

রিনচেনপং, সিকিম, ভারত

রিনচেনপং

পাইন,ওক এবং দেওদারের ঘন সামিয়ানা। অনাবিল কাঞ্চনজঙ্ঘা। আর জানা-অজানা অসংখ্য রং বেরং এর পাখি।  ১৭০০ মিটার উচ্চতায় পশ্চিম সিকিমের ছোট্ট গ্রাম রিনচেনপং (Rinchenpong) শিলিগুড়ি থেকে প্রায় ১২৫ কিমি দূরে অবস্থিত। পেলিং থেকে দূরত্ব ৪৫ কিমি। সুন্দরী সিকিমের সবুজ নীল হিমালয় ঘেরা এই গ্রাম নির্জনে ২-৩ দিন ছুটি কাটাবার আদর্শ গন্তব্য এটি। এখানে নেই দোকান পাটের … বিস্তারিত

রাইন, নরওয়ে

নর্দার্ন লাইটস, রাইন

রাইন নরওয়ের একটি গ্রাম, আর্কটিক বৃত্তের ১০০ কিলোমিটার উপরে এই শ্বাসরুদ্ধকর গ্রামটি নরওয়ের লফোটেন দ্বীপপুঞ্জের মস্কেনেসয়া দ্বীপে অবস্থিত। গ্রামটি যথারীতি “পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর জায়গা” হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেছে।এর জনসংখ্যা ৩২৯ জন মাত্র। সবচেয়ে ভাল কিছু জেলেদের ঐতিহ্যবাহী কটেজ গুলোকে ভ্রমণকারীদের থাকার … বিস্তারিত

আগরতলা

ত্রিপুরা

ভারতের ত্রিপুরা (Tripura) রাজ্যের রাজধানী আগরতলা বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়া স্থলবন্দরের খুব কাছে। বাংলাদেশের সাথে অনেক কিছুতেই বেশ মিল, যেমন ধরুন কথা বার্তার ধরন, আচার আচরণ। অনেক সময় হয়ত মনেই হবে না এটি বাংলাদেশের বাইরে অন্য দেশের অন্য একটি শহর। এই আগরতলা শহর এবং এর বাইরে রয়েছে চমৎকার সব দর্শনীয় স্থান। … বিস্তারিত

পেডং

পেডং

পশ্চিমবঙ্গের মাথার কাছে চার হাজার আশি ফুট উচ্চতায় এক ছোট্ট জনপদ এই পেডং। কালিম্পং থেকে মাত্র ২০ কিলোমিটার দূরে। নগরের কোলাহল থেকে দূরে নিরিবিলি ছুটি কাটানোর আদর্শ জায়গা পেডং। ওক, পাইন, বার্চ গাছের ঘন ছায়ায় শুধুই স্নিগ্ধতা। সুদীর্ঘ পাহাড়ি গাছের কোলে রয়েছে পেডং এর ক্রস হিল। … বিস্তারিত

কন্যাকুমারী

কন্যাকুমারী

ভারতবর্ষের ম্যাপের একেবারে শেষবিন্দুতে তিনসাগরের মিলনক্ষেত্রে স্বামী বিবেকানন্দের স্মৃতিমাখা শহর কন্যাকুমারী যা তামিল নাড়ু প্রদেশের অর্ন্তগত। ভারতের একেবারে দক্ষিণে পুণ্যতীর্থ কন্যাকুমারী এর অবস্থান। আরব সাগর, বঙ্গোপসাগর আর ভারত মহাসাগরের ত্রিবেণী সঙ্গম হয়েছে এখানে। কন্যাকুমারী থেকে সূর্যোদয় আর সূর্যাস্ত অনবদ্য। সমুদ্রের তীরে দেবী কুমারী আম্মান মন্দির। আজও পার্বতী এখানে কুমারীরূপে … বিস্তারিত

জিয়ারাত

জিয়ারাত

পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের একটি জেলা জিয়ারাত যা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৮০০০ ফিট উচুতে অবস্থিত। পাহাড়বেষ্টিত নয়নাভিরাম এই নগরটি ভ্রমণপ্রিয়দের কাছে এক পছন্দের ঠিকানা। করাচি থেকে কোয়েটা ভ্রমণকালে জিয়ারত এ সবাই একটু থেমে থাকে। বলা যায় আপনার কোয়েটা ভ্রমণ অসম্পূর্ণ থেকে যাবে জিয়ারাতে না গেলে। পাহাড়বেষ্টিত হওয়ায় গরমের সময়ও এখানে … বিস্তারিত

সাগানো ব্যাম্বো ফরেস্ট

সাগানো ব্যাম্বো ফরেস্ট

জাপানের কিয়োটো (Kyoto) শহরের উপকণ্ঠে জনপ্রিয় টুরিস্ট স্পট আরাশিয়ামা। আরাশিয়ামা বসন্তে চেরি ফুলের বিস্তৃতি আর শরতকালে রঙের ছোঁয়ায় অপরূপ সাজ নেয়। এ এলাকাকে ঘিরে গড়ে উঠেছে জাপানের বিখ্যাত সাগানো বাঁশ বাগান বা সাগানো ব্যাম্বো ফরেস্ট (Sagano Bamboo Forest)। একে আরো আকর্ষণীয় করে তুলতে বাঁশ ঝাড়ের মাঝখানে তৈরি হয়েছে পায়ে চলা পথ। বাঁশ … বিস্তারিত