কাওয়াচি ফুজি গার্ডেন

কাওয়াচি ফুজি গার্ডেন

কাওয়াচি ফুজি গার্ডেনকে জাপানের অনেক সুন্দর জায়গাগুলোর মাঝে একটি বলা হয়ে থাকে। কাওয়াচি ফুজি গার্ডেন এর প্রধান আকর্ষন হচ্ছে উইস্টেরিয়া ফুল। বাগানের মাঝে উইস্টেরিয়া ফুল গাছগুলো এমনভাবে লাগানো হয়েছে যে আপনি যখন দেখবেন তখন মনে হবে নিশ্চই কোনো দক্ষ চিত্রশিল্পী তার রংতুলি দিয়ে পুরো বাগানটিকে এঁকে রেখেছেন। দেখলে … বিস্তারিত

লারুঙ্গ গার, চীন

লারুঙ্গ গার

লারুঙ্গ গার বিশ্বের বৃহত্তম বৌদ্ধ গন্তব্য স্থান যা খুবই সন্মানিত এবং তিব্বতের বৌদ্ধধর্মাবলম্বীদের কাছে একটি আইকনিক জায়গা। তিব্বতীয়ান ভাষা, সংস্কৃতি এবং ধর্মের দিক থেকে এই জায়গার গুরুত্ব অপরিসীম। এখানকার শিক্ষার প্রশংসা সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে আছে। এখানে ৫ টি বৌদ্ধ একাডেমী রয়েছে। এখন এই শহরটি হলো ৪০ হাজারেরও … বিস্তারিত

গিয়েথুর্ন, নেদারল্যান্ডস

গিয়েথুর্ন

ছবির মতো সাজানো একটি গ্রাম হলো নেদারল্যান্ডস এর গিয়েথুর্ন গ্রাম যে গ্রামে কোন রাস্তা নেই, পুরোটাই ছবির মত সাজানো একটা গ্রাম। এই গ্রামে সবচেয়ে জোরে যে শব্দগুলি আপনি শুনতে পাবেন, তা হল হাঁসের ডাক আর অন্যান্য পাখিদের কলকাকলি। আর কোনও শব্দ নেই। হাল্কা কুয়াশামাখা শীত, কয়েক লক্ষ তারায় গিজগিজে আকাশ, সবুজ পাহাড়, বাগানে … বিস্তারিত

সুনতালেখোলা, ডুয়ার্স

সুনতালেখোলা

কিছুটা নির্জনতা, প্রকৃতির সঙ্গে কথা বলা, কর্মব্যস্ততার জীবনকে দূরে সরিয়ে নিজের মতো কাটাতে জঙ্গল, নদী পাহাড়ের সমন্বয় ডুয়ার্সের সুনতালেখোলা৷ ডুয়ার্সের মানচিত্রে প্রকৃতির পাঠশালা, যদিও জায়গাটি দার্জিলিং জেলার অন্তর্গত৷ ছোট্ট পাহাড়ি গ্রাম সুনতালেখোলা, নেপালি ভাষায় সুন্তালের অর্থ কমলালেবু এবং খোলার অর্থ ছোটো নদী৷ বর্ষায় সবুজের সমাহার, … বিস্তারিত

সিঙ্গাপুর

সিঙ্গাপুর

আধুনিক স্থাপত্য শৈলী আর অপরূপ সৌন্দর্যে ভরপুর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া মহাদেশের একটি একটি ছোট্ট দ্বীপ রাষ্ট্র সিঙ্গাপুর। দেশটি মালয় উপদ্বীপের নিকটে অবস্থিত। সিঙ্গাপুরের পোর্ট বিশ্বের সবচেয়ে ব্যস্ততম বাণিজ্যিক পোর্ট। দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বিলাসবহুল দেশ এটি। সিঙ্গাপুর এয়ারপোর্টে নামলেই আপনি বুঝবেন যে এটি বিশ্বের সেরা কয়েকটি এয়ারপোর্টের … বিস্তারিত

ফু থাপ বোয়েক

ফু থাপ বোয়েক

থাইল্যান্ড এর ফেচাবেন প্রদেশের লম কাও জেলার প্রধান আকর্ষন হলো ফু থাপ বোয়েক যা ফেচাবেন পর্বতমালার সর্বোচ্চ পয়েন্ট হিসেবে বিবেচিত হয়। এটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৭৬৮ মিটার উঁচু। এটি একটি পাহাড়ি এলাকা এবং অধিক উচ্চতার জন্যে সারা বছরই এখানে ঠান্ডা আবহাওয়া অনুভূত হয়। গরমের সময় এখানের তাপমাত্রা ২০ ডিগ্রী সেলসিয়াসের মত থেকে থাকে। এটি থাইল্যান্ডের রাজধানী … বিস্তারিত

কোলাখাম, উত্তরবঙ্গ, ভারত

কোলাখাম

লাভা থেকে আট কিলোমিটার দূরে এক অবাক পৃথিবী কোলাখাম। মাত্র ৬০টি ঘর নেপালি ‘রাই’ সম্প্রদায়ের মানুষের বসতি গড়ে উঠেছে এখানে। তারই ফাঁকে ফাঁকে কয়েকটি রিসর্ট নেওড়া ভ্যালি ফরেস্টের ঠিক গা ঘেঁষে। বনের ভেতরে ঢোকার ব্যাপারে বন বিভাগের বারণ আছে। তবু … বিস্তারিত

জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান

জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান যা আগে ছিল জলদাপাড়া বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য, পশ্চিমবঙ্গের আলিপুরদুয়ার জেলায় পূর্ব হিমালয়ের পাদদেশে অবস্থিত একটি জাতীয় উদ্যান। তোর্সা নদীর তীরে অবস্থিত এই অভয়ারণ্যের সামগ্রিক আয়তন ১৪১ বর্গ কিলোমিটার। এই অভয়ারণ্য যদিও ১৯৪০-৪১ সাল থেকেই প্রাণী সংরক্ষণ কেন্দ্র হিসাবে ঘোষিত, তবু অভয়ারণ্যের স্বীকৃতি জোটে … বিস্তারিত

হায়দ্রাবাদ

হায়দ্রাবাদ

মুসি নদীর তিরে তেলেঙ্গানার রাজধানী হায়দ্রাবাদ। ১৫৯১ খ্রিষ্টাব্দে গোলকন্ডার পঞ্চম নৃপতি কুতুব শাহ এই শহরটি পত্তন করেন। এর অতীতে নাম ছিল ভাগ্যনগরী। হায়দ্রাবাদের যমজ শহর সেকেন্দ্রাবাদ। হুসেন সাগর এই দুই শহরকে বিচ্ছিন্ন করেছে। ন্যাশনাল জিওগ্রাফিকের (National Geographic) ভ্রমণ সাময়িকী ‘ট্রাভেলার’-এর বিবেচনায় ২০১৫ সালে বিশ্ব ভ্রমণে বের হলে দেখার … বিস্তারিত

কার্শিয়াং

কার্শিয়াং

কার্শিয়াং দার্জিলিং জেলার একটি শৈল শহর এবং মহকুমা। এটি ১৪৫৮ মিটার উঁচুতে অবস্থিত। কার্শিয়াং দার্জিলিং থেকে মাত্র ৩০ কিলোমিটার দূরে। এখানকার আবহাওয়া সারা বছরই আরামদায়ক, শীতকালের ঠান্ডা দার্জিলিং এর মতো তীব্র নয়। কার্শিয়াং এর স্থানীয় নাম খার্সাং, লেপচা ভাষায় এই কথার অর্থ ‘সাদা অর্কিডের দেশ’। কার্শিয়াং (Kurseong) শিলিগুড়ি থেকে ৪৭ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত যার কাছের … বিস্তারিত

Giant's Causeway জায়ান্ট কজওয়ে

জায়ান্ট কজওয়ে

জায়ান্ট কজওয়ে যার বাংলা অর্থ দৈত্যের বাঁধানো পথ। জায়ান্ট কজওয়ে যুক্তরাজ্যের উত্তর আয়ারল্যান্ডে অবস্থিত প্রায় ৪০ হাজার হেক্টাগোনাল পাথরের কলামে তৈরী একটি প্রাকৃতিক গুহা। এটি একটি প্রসিদ্ধ পর্যটক এলাকা। বাসমিল শহরের ৪.৮ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে এর অবস্থান। ইউনেস্কো কর্তৃক ১৯৮৭ সালে এটিকে … বিস্তারিত

Door to Hell ডোর টু হেল

ডোর টু হেল

তুর্কমেনিস্তানের ড্রাভা শহরে রয়েছে একটি জ্বলন্ত গর্ত। সবার কাছেই এই জ্বলন্ত জায়গাটি ‘ডোর টু হেল’ নামে পরিচিত। রাতের বেলা নরকের এই দরজাটি খুবই সুন্দর লাগে। তখন অনেক দূর থেকেই জায়গাটা তো দেখা যায়ই, এর শিখার উজ্জ্বলতাও ভালোমতো বোঝা যায়। সেখানকার উত্তাপ এত বেশি যে, কেউ চাইলেও ৫ মিনিটের বেশি সেখানে থাকতে পারে না। … বিস্তারিত